ছাত্রীকে বিয়ে করতে গিয়ে শিক্ষক কারাগারে

নগরকান্দায় ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ের উদ্যোগ নেওয়ায় একই স্কুলের এক শিক্ষককে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আদালত একই সাথে ওই ছাত্রীর বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং একটি মুচলেকা নেন।

শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার রামনগর ইউনিয়নে একটি গ্রামে অবস্থিত ওই ছাত্রীর বাড়িতে পরিচালিত এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন নির্বাহী হাকিম ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জ্যেপী প্রু। কারাদণ্ড প্রাপ্ত শিক্ষক সাজ্জাদ মীর (২৮) রামনগর এলাকার একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্মীয় বিভাগের সহকারি শিক্ষক। তিতি একই উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের কাইচাইল গ্রামের বাসিন্দা।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ওই শিক্ষক একই স্কুলের দশম শ্রেণির (১৬) এক ছাত্রীকে বিয়ে করার উদ্যোগ নেন। শুক্রবার অভিযানকালে ছাত্রীর বাড়ি থেকে সাজ্জাদকে উদ্ধার করা হয়। ওই সময় বাড়িতে রান্নার ব্যাপক আয়োজন চলছিল।

আদালত বল্য বিবাহ করার উদ্যোগ নেওয়ায় সাজ্জাদ মীরকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেন। একই সাথে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ের বাল্য বিবাহের উদ্যোগ নেওয়ায় মেয়ের বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসময় আদালত মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ের উদ্যোগ নেবে না মর্মে মেয়ের বাবা এবং ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত ওই ছাত্রীকে বিবাহ করবেন না মর্মে শিক্ষকের মুচলেকা গ্রহণ করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাসুদ মোল্লা বলেন, ঘটনাটি আমাদের শিক্ষকদের জন্য অনাকাংখিত। এটি আমাদের জন্য একটি দুঃখজনক অভিজ্ঞতা।

ইউএনও জ্যেতী প্রু জানান, স্কুল শিক্ষক একই স্কুলের এক ছাত্রীকে বিবাহ করার উদ্যোগ নেওয়ায় ২০১৭ সালের বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে এ জেল ও জরিমানা করা হয়।