দেশের মানুষ এখন গণতন্ত্র চায়, ফিরে পেতে চায় ভোটের অধিকারঃ মির্জা ফখরুল

বিএনপিই একমাত্র দল যারা অতীতে গণতন্ত্র নিয়ে এসেছে আবারও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে বলেছেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আগামী দিনগুলোতে বিএনপির নেতৃত্বে সমস্ত রাজনৈতিক দল ও মানুষকে নিয়ে যে গণঐক্য তৈরি হবে, সেই গণঐক্যের উত্তাল জোয়ারে একটা আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে আমরা এই সরকারকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করবো।

আজ বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে নীলফামারী-৪ সৈয়দপুর আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট ও নীলফামারী জেলা শাখার আহ্বায়ক বিরোধীদলীয় সাবেক হুইপ শওকত চৌধুরীর বিএনপিতে যোগদান অনুষ্ঠানে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা বলেন।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, শওকত চৌধুরী যখন আমাদের দলে যোগ দিলেন তখন দেশে সবচেয়ে কঠিন অবস্থা বিরাজ করছে। কোনো গণতন্ত্র নাই, রাজনৈতিক দলগুলোর কাজ করার অধিকার নাই। সংগঠন করা যায় না। কোথাও সম্মেলন, সভা করতে গেলে পুলিশ হামলা করে। সেই সময় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে শওকত চৌধুরী বিএনপি যোগ দিলেন। আমি শওকত চৌধুরীকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে দলে বরণ করে নিচ্ছি। আজকে শওকত চৌধুরীর যোগদানের মধ্যে দিয়ে এটা প্রমাণিত হয়েছে যে দেশের মানুষ এখন গণতন্ত্র চায়। কথা বলতে চায়, ভোটের অধিকার ফিরে পেতে চায়।

প্রহসনের নির্বাচন বন্ধ করার দাবি জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, আমরা এই মুহূর্তে নির্বাচন কমিশন ও এই সরকারের পদত্যাগ দাবি করছি। কারণ তারা সংবিধান লঙ্ঘন করে জনগণের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। তারা বেআইনি একটি সরকার হয়ে আছে। তাই পদত্যাগ করে একটি নতুন কমিশনের অধীনে নির্বাচনের দাবি করছি। সূত্রঃ বাংলা নিউজ২৪