এই ভ্যাকসিনের মাধ্যমে দেশ করোনামুক্ত হবেঃ প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনার এই ভ্যাকসিনের মাধ্যমে দেশবাসী করোনামুক্ত হবে। প্রধানমন্ত্রী জানান, সারা বাংলাদেশেই পর্যায়ক্রমে ভ্যাকসিন দেয়া হবে।

আজ বুধবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে দেশে করোনা ভ্যাকসিন দেয়ার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়ার উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এ প্রোগ্রামের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী জানান, তিন কোটি ৪০ লাখ ডোজ কেনা হয়েছে। এরপর এগুলো সময়মতোই আসতে থাকবে। কোনো সমস্যা হবে না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, এটা ঐতিহাসিক দিন। কেননা, অনেক দেশ এখনো ভ্যাকসিন পায়নি। সেখানে অর্থনৈতিক সীমাবদ্ধতা সত্বেও বাংলাদেশে ভ্যাকসিন আমদানি করেছে সরকার।

রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়ার স্টাফ নার্স বেরোনিকা কস্তার দেহে টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে প্রথম টিকাদান শুরু করা হয়। তাঁরপরে এক পুলিশ সদস্য ও সেনাসদস্যকে টিকা দেয়া হয়।

এর আগে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে সকাল সাড়ে ১১টায় পৌঁছায় ভ্যাকসিনের ভায়াল। সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি-ইপিআই এর স্টোর থেকে কোল্ডবক্সে ২০টি ভায়েলে ২০০ ডোজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন আনা হয়। ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত এগুলো সংরক্ষণ করা হবে এখানে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে প্রয়োগ করা হবে ভারত থেকে নিয়ে আসা প্রতিষেধক। প্রথম দিন ৩০ জনকে দেয়া হচ্ছে প্রতিষেধক।

এদিকে, সারাদেশে একযোগে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হবে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।