স্যানিটাইজার ব্যবহারের কারণে শিশুদের চোখ ও ত্বকের সমস্যা বাড়ছেঃ গবেষণা

করোনার কারণে ব্যাপক পরিমাণে বেড়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার। তবে এক দিকে জীবাণুর সঙ্গে লড়াই করার জন্য যেমন এই স্যানিটাইজার অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে, অন্য দিকে, এর কারণেই বাড়ছে শিশুদের নানা সমস্যা। আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন এ প্রকাশিত এক গবেষণাপত্র এমন কথাই জানিয়েছে।

গবেষণায় বলা হয়েছে, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের কারণে শিশুদের চোখের এবং ত্বকের সমস্যা মারাত্মক ভাবে বেড়ে যাতে পারে। হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৭০ শতাংশ অ্যালকোহল রয়েছে যা মোটেও স্বাস্থ্যকর না। বিশেষ করে শিশুদের জন্য।

আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন এর গবেষণা বলছে, তাদের সমীক্ষা অনুযায়ী, ২০১৯ সালে যত জন শিশুকে চোখে বিষক্রিয়ার কারণে চিকিৎসা করানো হয়েছিল, তার মধ্যে মাত্র ১.৩ শতাংশের ক্ষেত্রেই বিষক্রিয়ার কারণ ছিল হ্যান্ড স্যানিটাইজার। কিন্তু ২০২০ সালে তা বেড়ে হয়েছে প্রায় ১০ শতাংশের কাছাকাছি। শুধু চোখের নয়, বাড়ছে ত্বকের সমস্যাও। ৭০ শতাংশ অ্যালকোহলের কারণে ত্বকের কিছু পরিবর্তন হবে, সেটাই স্বাভাবিকই। সেক্ষেত্রে শিশুদের ত্বক নরম হওয়ায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। চিকিৎসকরা বলছেন, অনেক সময়ই শিশুরা নিজের খেয়ালে মুখে বা চোখে হাত দেয়। সেই সময় তাদের হাতে যদি স্যানিটাইজার লেগে থাকে, তা চোখে বা মুখে গেলে বিষক্রিয়া ঘটাতে পারে। এভাবে অনেক শিশু ভুল করে স্যানিটাইজার খেয়ে ফেলছে।

আবার ত্বকে নানা ধরণের ব্যাকটেরিয়া থাকে এর মধ্যে অনেকগুলো উপকারী ব্যাকটেরিয়া। স্যানিটাইজারের ফলে সেগুলো মারা গেলে শরীরের ক্ষতি হয়।তবে স্যানিটাইজারের যেহেতু বিকল্প নেই তাই স্যানিটাইজারের ব্যবহার কিছুটা কমিয়ে গ্লাভসের ব্যবহার করতে হবে। এক্ষেত্রে কিছুটা হলেও কমবে স্যানিটাইজারের ব্যবহার।

সূত্রঃ আনন্দবাজার