ভারতীয় ক্রিকেটারদের লিফটেও উঠতে দিতো না অস্ট্রেলিয়াঃ অভিযোগ অশ্বিনের

অস্ট্রেলিয়া সফরে কঠিন সময় পার করেছে ভারতীয় ক্রিকেটাররা। মাঠ ও মাঠের বাইরে বার বার বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে ভারতীয় ক্রিকেটাররা। এবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধরের সঙ্গে কথোপকথনে রবিচন্দ্রন অশ্বিন জানিয়েছেন, সিডনিতে লিফটের ভিতরে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটারেরা থাকলে, তাঁদের ঢুকতে দেওয়া হত না।

অশ্বিন বলেন, আমরা সিডনি পৌঁছনো মাত্র কঠোরতম সব নিষেধাজ্ঞা আমাদের উপরে চাপিয়ে দেওয়া হয়। কার্যত বন্দি করে ফেলা হয় আমাদের। খুব অবাক করার মতো একটা অভিজ্ঞতাও হয়েছিল আমাদের। অস্ট্রেলীয় খেলোয়াড়েরা যখন লিফটের ভিতরে থাকত, আমাদের প্রবেশ করতে দেওয়া হত না।

অশ্বিন আরও বলেন, ঘটনাটা খুব বিস্মিত করার মতো। দু’টো দলই তো একই জৈব সুরক্ষা বলয়ে ছিল। সত্যি কথা বলতে কী, আমাদের সকলকেই খুব অবাক করেছিল এই নিষেধাজ্ঞা। অশ্বিন জানিয়েছেন, বিশেষ করে সিডনিতে যে রকম আচরণ তাঁদের সঙ্গে করা হচ্ছিল, তাতে ভারতীয় ক্রিকেটারদের খুবই খারাপ লেগেছিল। প্রসঙ্গত, সিডনিতেই টেস্ট ম্যাচ চলার মধ্যে গ্যালারি থেকে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য করা হয় সিরাজ, বুমরাহদের উদ্দেশে।

অশ্বিন আরও বলেছেন, মেলবোর্নে প্রচুর নাটক হল। অস্ট্রেলিয়ায় যখন আমরা এসেছিলাম, তখন কিন্তু বলা হয়েছিল ইতিমধ্যেই আমরা আইপিএলের জৈব সুরক্ষা বলয়ে থেকে এসেছি। তাই খুব কঠোর কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টােনের পরে আমরা কফি পান করতে যেতে পারি, সিনেমা দেখতে যেতে পারি, বাইরে যাওয়ার উপরে কোনও নিষেধাজ্ঞা ছিল না। সে রকমই আমাদের বলা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, মেলবোর্নে ভারত জেতার পরে দ্রুত পরিস্থিতি পাল্টে যেতে থাকে। অশ্বিনের কথায়, সিরিজ ১-১ হতেই সব কিছু পাল্টে গেল। তখনই আমাদের বলে দেওয়া হল, হোটেলের ঘর থেকে নড়াচড়া করা যাবে না। অনন্তকাল ধরে কী করে হোটেলের ঘরে বন্দি থাকা সম্ভব? আমি অস্ট্রেলিয়াতে পরিবার নিয়ে গিয়েছিলাম। আমার বাচ্চারা কান ঝালাপালা করে দিচ্ছিল বাইরে বের হবে বলে। সেই সময়টা সত্যিই খুব কঠিন ছিল আমাদের জন্য।