মেহেদির জোড়া আঘাতে দিশেহারা ওয়েস্ট ইন্ডিজ

পাওয়ার প্লের পর রানের গতি একটু বাড়ানোর চেষ্টা করছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেয়র্ন ওটলি। তার ব্যাটিংয়ে দেখা যাচ্ছিল খানিকটা অভিপ্রায়ের ছাপ। কিন্তু বেশিদূর তাকে এগোতে দিলেন না মেহেদী হাসান মিরাজ।

অফ স্টাম্পের বাইরের লেংথ বল জায়গা বানিয়ে কাভারের ওপর দিয়ে খেলতে চেয়েছিলেন ওটলি। কিন্তু যতটা ওপরে খেলতে চেয়েছিলেন, ততটা পারেননি। সহজ ক্যাচ তালুবন্দি করেন অধিনায়ক তামিম।

ওটলির বিদায়ের রেশ না মিলিয়ে যেতেই ক্যারিবিয়ানদের আরেকটি ধাক্কা দিলেন মিরাজ। একই ওভারে তিনি ফেরালেন জশুয়া দা সিলভাকে।

জশুয়া যেন নিজের বিপদ ডেকে আনেন ভুল লাইনে খেলে। ভাসিয়ে দেওয়া বল অফ স্টাম্পে পিচ করে অ্যাঙ্গেলে সোজা হয়ে ঢোকে। জশুয়া ব্যাট পেতে দেন বল টার্ন করবে ভেবে। ব্যাটের পাশ দিয়ে বল গিয়ে লাগে স্টাম্পে।

এরপর নিজের প্রথম ওভারেই আন্দ্রে ম্যাককার্থিকে বোল্ড করে ফেরত পাঠান সাকিব আল হাসান।

যেন ঠিক প্রথম ম্যাচের পুনরাবৃত্তি! একইভাবে দৃষ্টিকটু শট খেলে উইকেট উপহার দিলেন ম্যাককার্থি। নিজের প্রথম ওভারেই উইকেটের স্বাদ পেলেন সাকিব।

সাকিবের স্টাম্প সোজা ঝুলিয়ে দেওয়া বল হাঁটু গেড়ে তেড়েফুঁড়ে সুইপ করতে চাইলেন ম্যাককার্থি। বলের ধারেকাছে থাকল না ব্যাট। বল গিয়ে লাগল মিডল স্টাম্পে। দলের বিপর্যয়ের মধ্যে অবিশ্বাস্য বাজে শট ম্যাককার্থির।

একের পর এক আঘাতে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন ক্যারিবিয়ানরা। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১৫ ওভার শেষে ৩৯ রানেই ৪ উইকেট নেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের।