ফর্মে ফেরাটা সহজ ছিল না, তবে পারফরম্যান্সে খুশিঃ সাকিব

আইসিসির এক বছরের নিষেষাজ্ঞা ও করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকার কারণে দীর্ঘ ১৬ মাস পর খেলতে নেমে প্রায় একা হাতেই ক্যারিবীয়দের গুঁড়িয়ে দেন সাকিব। বাংলাদেশের সামনে জয়ের লক্ষ্য মাত্র ১২৩ রানের। ইনিংস বিরতিতে সাকিব জানিয়েছেন, এতদিন পর ফর্মে ফেরাটা কঠিন হলেও নিজের পারফরম্যান্সে তিনি খুশি।

ব্রডকাস্টারদের সঙ্গে প্রথম ইনিংসের বিষয়ে কথা বলার সময় সাকিব বলেছেন, ভালো লাগছে। ১৬-১৭ মাস পর খেলাটা সহজ নয়। তবে যেভাবে পারফর্ম করেছি, আমি খুশি। বিষয়টা হলো, আমরা ১০ মাস কিছুই খেলিনি। তাই সবাই খেলার জন্য মুখিয়ে ছিল। শুরুতে সবার মধ্যেই নার্ভাসনেস ছিল, একইসঙ্গে উত্তেজনাও কাজ করেছে।

বোলিংয়ে সাফল্যের পেছনে সহজ পরিকল্পনার কথা জানিয়ে সাকিব আরও বলেন, আমার পরিকল্পনা ছিল যে সবকিছু যত সহজ রাখা যায়, যত ভালো জায়গায় বোলিং করা যায় এবং বাকিটা উইকেটের (পিচ) হাতে ছেড়ে দেয়া।

নিজের শততম ওয়ানডে ম্যাচে বল হাতে নেমে নিজের দ্বিতীয় ওভারেই উইকেট নেন সাকিব। দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলে ম্যাককার্থিকে বোল্ড করে সাকিব পূরণ করেন নিজের ১৫০ তম উইকেট। এরপর নিজের চতুর্থ ওভারে বোলিংয়ে এসে আবারো উইকেট নেন সাকিব। জেসন মোহাম্মদকে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলে তুলে নেন নিজের দ্বিতীয় উইকেট।

দলটির খাতায় আর কোনো রান যোগ হওয়ার আগেই সাজঘরে ফেরেন এনক্রুমা বোনার। সাকিবের তৃতীয় ও বাংলাদেশের পঞ্চম শিকারে পরিণত হন তিনি। ৪ বল খেলে শূন্য রানে আউট হন অভিষেক ওয়ানডেতে নামা এই অলরাউন্ডার। অষ্টম ওভারে আরো একটি উইকেট নেন সাকিব। সব মিলিয়ে ৭.২ ওভার বোলিং করে মাত্র ৮ রান খরচায় ২ মেডেন দিয়ে ৪ উইকেট নেন সাকিব।