সবারই মাস্ক আছে, তবে তাঁর সঠিক ব্যবহার নেই

বিশ্বমহামারীর দীর্ঘ ১ বছর চলে গেলেও করোনাভাইরাস প্রতিরোধে তেমন একটা সাফল্যময় প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারিনি চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। যার কারণে সারাবিশ্বে করোনার প্রভাবে আক্রান্ত হয়েছে ৫ কোটির উপরে মানুষ। মৃতের সংখ্যাও অনেক।

তাই করোনা থেকে রক্ষা পেতে মাস্ক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার উপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তারই প্রেক্ষিতে সরকার মাস্ক পড়া ও সামাজিক দূরত্ব বজায়ে রাখার উপর কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন কিন্তু বাস্তবে মানুষ কতটুকু মানছে সেটা দেখার জন্য আজ মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরি ঘাটে গেলে জনসাধারণের মধ্যে ভিন্ন চিত্র দেখা গিয়েছে।

জনসাধারণের মধ্যে সবারই কাছে মাস্ক রয়েছে। তবে বেশির ভাগ মানুষই তা ব্যবহার করছেনা। কারো রয়েছে পকেটে, আবার কারো মুখের নিচে। অনেকেই আবার নানা ধরনের অজুহাত দিচ্ছেন। বিশেষ করে যাদের কাছে একেবারেই নেই তারা নানা তালবাহানার কথা বলছেন।

ঢাকাগামী একজন ভদ্রলোককে মাস্কের কথা বলায়, সে বলে মাস্ক আছে, তবে পকেটে। এই মাত্রই খুলে রাখলাম। এখনি পড়ছি। সব সময়তো পড়ি।

অন্যদিকে একাধিক যাত্রী যাদের বেশির ভাগই মাস্ক মুখের নিচে থাকে তবে এতো সময় মুখেই ছিল। অনেক সময় ধরে ব্যবহার করছি তো তাই এখন একটু নাকের নিচে নামিয়ে রেখেছি। তবে আমাদের সবার উচিত নিয়ম মেনে মাস্ক ব্যবহার করা। তাতে আমাদের নিজেদের ও সকলের মঙ্গল হবে।