শাশুড়ির অনুরোধে বিয়েতে বেনারসিতেই সাজবেন দেবলীনা

দীর্ঘ তিন বছরের প্রেম পরিণতি পেতে চলেছে এই শীতেই। গাঁটছড়া বাঁধছেন গৌরব চট্টোপাধ্যায় এবং দেবলীনা কুমার। আগামী ৯ ডিসেম্বর সাত পাকে বাধা পড়তে চলেছেন টলিউডের এই হিট জুটি।

দেবলীনা জানালেন, ওই দিন একদমই ঘরোয়া অনুষ্ঠানে সব রীতিনীতি মেনে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হবেন দেবলীনা-গৌরব। পরিবারের সদস্যরাই শুধু উপস্থিত থাকবেন সেখানে। কিন্তু বিয়ে নিয়ে বরাবরই তাঁর পরিকল্পনা ছিল অন্য রকম। এর আগে ‘দিদি নম্বর ওয়ান’-এর একটি এপিসোডে দেবলীনা জানিয়েছিলেন, খুব ধুমধাম করে বিয়ে করতে চান। দেবলীনা বলেছিলেন, প্রচুর উপহার চাই তাঁর বিয়েতে। বিয়ের সব উপহার ট্রাকে করে বাড়িতে নিয়ে যাবেন! হাসতে হাসতে দেবলীনার উত্তর: “গিফট আমি একদমই ছাড়ব না। মার্চ বা এপ্রিলে আমাদের গ্র্যান্ড সেলিব্রেশন হবে তখন প্রচুর মানুষজন আসবেন।”

শাশুড়ির অনুরোধে দেবলীনা বিয়ের দিন লাল বেনারসিতে তাক লাগাতে চলেছেন। উত্তমকুমার ভীষণ পছন্দ করতেন বেনারসি শাড়ি। তাই দেবলীনার শাশুড়ি মায়ের ইচ্ছে, বিয়ের পাশাপাশি বৌভাতের দিনও শাড়িতে সেজে উঠুক পুত্রবধূ। তাঁর আবদার মেটাতে দুই অনুষ্ঠানেই বেনারসিতে দেখা যাবে নববধূকে। লেহেঙ্গা আপাতত সাজের তালিকা থেকে বাদ!

অন্য দিকে, বিয়ের সব যোগাড়যন্ত্র এবং শ্যুটিং নিয়ে বেজায় ব্যস্ত গৌরব। বিয়ের জন্য জামাকাপড় কিনতে যাওয়ার সময়টকুও পাচ্ছেন না হবু বর! বেশি কারুকার্য করা পোশাক পছন্দ করেন না তিনি। তাই বিয়েতে সেজে উঠবেন ডিজাইনার অভিষেক রায়ের তৈরি পোশাকে।

বনেদি বাড়ির পুত্রবধূ হতে চলেছেন দেবলীনা। ঘটা করে প্রত্যেক বছর লক্ষ্মীপুজো হয় সেখানে। তবে বিয়ের ক্ষেত্রে বিশেষ কোনও রীতি-রেওয়াজ পালনের বিষয় নেই বলে জানিয়েছেন গৌরবের মা। বিয়ের পর ১৮ তারিখে দার্জিলিংয়ে মধুচন্দ্রিমা করতে যাওয়ার কথা ছিল তাঁদের। টিকিট কাটাও হয়ে গিয়েছিল ইতিমধ্যেই। কিন্তু দেবলীনার ছবির শ্যুট তখনই শুরু হওয়ায় আপাতত সেই প্ল্যান ভেস্তে গিয়েছে!

সেই দুঃখ ভুলতে লকডাউনে রান্নাবান্না পর্যন্ত শিখে ফেলেছিলেন মহানায়কের হবু নাতবউ। তবে করোনার জন্য এই বছর বিয়ে ভেস্তে যাওয়ার আফসোস আর থাকল না দেবলীনার। আর কয়েক দিন পরেই মনের মানুষের সঙ্গে নতুন জীবনে পা রাখতে চলেছেন অভিনেত্রী দেবলীনা।

সূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা