ভারত-পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের একত্র হওয়া উচিতঃ ভারতীয় মন্ত্রী

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি যদি ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশকে একত্র করে একটি রাষ্ট্রে পরিণত করে তবে তাকে স্বাগত জানাবেন বলে জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী নওয়াব মালিক।

গতকাল রবিবার এক বিবৃতিতে নওয়াব মালিক বলেন, বিজেপি এমন কোনো পদক্ষেপ নিলে তার দল ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) সেটা মেনে নেবে।

মাত্র কয়েকদিন আগেই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফাদনাভিস বলেছেন যে, এমন এক সময় আসবে যখন পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের রাজধানী করাচি ভারতের অংশ হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে নওয়াব মালিক বলেন, আমরা বলতে চাই যে, ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের একত্র হওয়া উচিত।

তিনি বলেন, যদি বার্লিন ওয়াল ধ্বংস হতে পারে তবে ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশ কেন এক হতে পারবে না? তিনি বলেন, বিজেপি যতি এই তিন দেশকে একত্র করে একটি দেশ বানাতে চায় তবে আমরা অবশ্যই এটাকে স্বাগত জানাব।

নওয়াব মালিক জানিয়েছেন, আগামী বিএমসি নির্বাচনে শিব সেনা এবং কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে লড়তে চায় তার দল এনসিপি। বর্তমানে মহারাষ্ট্রের মহা বিকাশ আঘাদি (এমভিএ) সরকারের অংশ শিব সেনা ও কংগ্রেস।

বিএমসি নির্বাচনের আরও ১৫ মাস বাকি আছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রত্যেক দলেরই তাদের দলের জন্য কাজ করার অধিকার রয়েছে এবং সব দলই তাই করছে। তিনি বলেন, আমরাও আমাদের দলকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছি।

নওয়াব মালিক বলেন, যারা সরকার পরিচালনা করছে সেই তিনদলের নির্বাচনে এক সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা উচিত। মহারাষ্ট্রে লকডাউনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন এই সাংসদ। তিনি বলেছেন, এখন মহারাষ্ট্রে লকডাউনের কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই।

তিনি জানিয়েছেন, আরোগ্য সচিবালয় প্রত্যেক জেলায় একজন করে উপদেষ্টা পাঠিয়েছে যাদের মাধ্যমে কোভিড-১৯ সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের বিষয়ে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া সম্ভব হবে। তিনি বলেন, আমরা করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বেশ সফল হয়েছি। অনেক রাজ্যেই সংক্রমণ বাড়তে থাকায় কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। তবে মহারাষ্ট্রের অবস্থা এমন নয়। তিনি বলেন, এখানে কোভিড পরিস্থিতি এমন নয় যে লকডাউন দিতে হবে।