ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের সমালোচনায় সৌদি প্রিন্স

ইসরায়েলের সঙ্গে দুই উপসাগরীয় দেশের স্বাভাবিক সম্পর্ক চুক্তি প্রত্যাখ্যান করায় ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন সৌদি প্রিন্স। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের নিন্দা জানান যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত সৌদির রাষ্ট্রদূত ও সাবেক গোয়েন্দা বিভাগীয় প্রধান বনদর বিন সুলতান বিন আবদুল আজিজ।

ইসরায়েলের সঙ্গে উপসাগরীয় দেশে আরব আমিরাত ও বাহরাইনের স্বাভাবিক সম্পর্কের চুক্তির বিষয়টি ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের প্রত্যাখ্যানকে ‘অত্যন্ত নিন্দনীয়’ ও ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে আখ্যায়িত করেন তিনি। ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশের স্বাভাবিক সম্পর্ককে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ বলে উল্লেখ করেন ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

প্রিন্স বন্দর ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের সংকটের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, ‘ঐতিহাসিকভাবে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ সব সময় পরাজিতদের পক্ষাবলম্বন করে, যার ফলে তাদের চরম মূল্য দিতে হয়।’ যুগ যুগ ধরে ফিলিস্তিনবাসীর জন্য সৌদি আরবের অসামান্য সহযোগিতার কথা তুলে ধরে প্রিন্স বন্দর বলেন, ‘ফিলিস্তিনবাসীর এ কথা স্মরণ রাখা উচিত, সৌদি আরব সব সময় তাদের সহায়তা ও পরামর্শ দিতে প্রস্তুত।’

গত ১৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় ওয়াশিংটনের হোয়াইট হাউসে ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক চুক্তি স্বাক্ষর করে আরব আমিরাত ও বাহরাইন। ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর স্বাভাবিক সম্পর্কের ফলে আরবদের দীর্ঘকালের দাবি করা ‘আরব পিস ইনিশিয়েটিভ’ ফিকে হয়ে আসবে আশঙ্কা করছে ফিলিস্তিনবাসী। ‘আরব পিস ইনিশিয়েটিভ’-এর দাবি মতে, ইসরায়েল কর্তৃক দখলকৃত ফিলিস্তিনের জমি ছেড়ে দিতে হবে এবং জেরুজালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠন করতে হবে। পরিবর্তে ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর স্বাভাবিক কূটনৈতিক সম্পর্ক গড়া হবে।