করোনায় দেশে মারা গেল ৫৩০৫ জন

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত করোনায় মোট মারা গেলেন পাঁচ হাজার ৩০৫ জন।

শুক্রবার (২ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনা-বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৩৯৬ জন, আর এ পর্যন্ত শনাক্ত হলেন তিন লাখ ৬৬ হাজার ৩৮৩ জন। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৫৪৯ জন, আর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন দুই লাখ ৭৮ হাজার ৬২৭ জন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৯টি পরীক্ষাগারে করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১১ হাজার ৫০৯টি। আর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার ১৭৬টি। এখন পর্যন্ত মোট করোনার নমুনা পরীক্ষা হলো ১৯ লাখ ৭০ হাজার ২৫১টি। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১২ দশমিক ৪৯ শতাংশ, আর এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৬০ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৬ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার এক দশমিক ৪৫ শতাংশ।

অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের বরাতে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ২৫ জন, আর নারী আট জন। এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন চার হাজার ১০৪ জন, আর নারী এক হাজার ২০১ জন। শতকরা হিসেবে পুরুষ ৭৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ এবং নারী ২২ দশমিক ৬৪ শতাংশ। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ২৬ জনের মধ্যে বিশোর্ধ্ব একজন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব সাতজন এবং ষাটোর্ধ্ব ২৩ জন। বিভাগ অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৩৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২১ জন, চট্টগ্রামে ৬, রাজশাহীতে ৩, খুলনায় ১, বরিশাল ১ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে একজন রয়েছেন।

২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হওয়া এক হাজার ৫৪৯ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৭২২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৮০ জন, রংপুর বিভাগে ৪৬ জন, খুলনা বিভাগে ৪২৭ জন, বরিশাল বিভাগে ২৪ জন, রাজশাহী বিভাগে ৯৩ জন, সিলেট বিভাগে ৪১ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১৬ জন রয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ৬৯৯ জন, আর ছাড়া পেয়েছেন ৯১৩ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন পাঁচ লাখ ৩৫ হাজার ৯১ জন, আর ছাড়া পেয়েছেন চার লাখ ৯২ হাজার ১৭৫ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৪২ হাজার ৯১৬ জন।

একই সময়ে আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ২১০ জন, আর ছাড়া পেয়েছেন ৫৬৪ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৭০৯ জন, আর ছাড়া পেয়েছেন ৬৭ হাজার ২০৫ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৪ হাজার ৫০৪ জন।

দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হয় ৮ মার্চ। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১৮ মার্চ। করোনাভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য একটি বিশেষ ওয়েবসাইট (www.corona.gov.bd) চালু রেখেছে সরকার।