রাহুল-প্রিয়াঙ্কাকে আটকের পর ছেড়ে দিলো পুলিশ

আটকের প্রায় দুই ঘণ্টার মাথায় ভারতের কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ও তার বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) দুপুরে উত্তর প্রদেশের হাথরসে যাওয়ার পথে আটক করা হয়েছিল তাদের। তবে আটকের কয়েকঘণ্টা পরেই তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

হাথরসে গণধর্ষণের শিকার মৃত নির্যাতিতার পরিবারের সাথে দেখা করতে যাচ্ছিলেন রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। এসময় তাদের সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীরাও ছিলেন।

জানাগেছে, উত্তর প্রদেশে ১৪৪ ধারা জারি করে রেখেছিল রাজ্য প্রশাসন। রাজ্যের গ্রেটার নয়ডায় তাদের গাড়িবহর আটকে দেয় পুলিশ। এসময় পুলিশের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা অপব্যবহারের অভিযোগ তুলে নেতাকর্মীদের নিয়ে ১৪৪ ভেঙ্গে হাথরসের দিকে রওয়ানা হন রাহুল ও কংগ্রেস নেতারা। তারপরেই আটক করা হয় রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে রাহুলের ধস্তাধস্তির ঘটনাও ঘটে।

আটকের আগে রাহুল গান্ধী সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশ আমাকে আঘাত করেছে। ধাক্কা দিয়েছে। আমার উপর লাঠিচার্জ করা হয়েছে। মাটিতে ফেলে দিয়েছে আমাকে। আমি জানাতে চাই, শুধু কি নরেন্দ্র মোদি দেশে হাঁটতে পারবেন? সাধারণ মানুষ কি দেশে চলাফেরা করতে পারবে না? আমাদের গাড়ি থামিয়ে দেয়া হয়েছে। তাই আমরা পায়ে হেঁটে হাথ্রাসের উদ্দেশে রওনা দিয়েছি।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জানায়, ১৪৪ ধারা ভেঙে বিধিমালা লঙ্ঘন করায় আটক করা হয়েছে তাদের। এছাড়া, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে রাজ্যে প্রবেশের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ রয়েছে বলেও জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে।