মেসি আর পেছাবে না: বার্সার প্রেসিডেন্ট প্রার্থী

বার্সেলোনাকে একটা চিঠি পাঠিয়েছেন লিওনেল মেসি। জানিয়ে দিয়েছেন, আর ক্লাবে থাকতে চান না। এরপর অনেকটা পথ হেঁটে গেছেন। কোন কথা ছাড়াই। মেসি ঝুঁকেছেন ম্যানচেস্টার সিটির দিকে, এটা মোটামুটি পরিষ্কার। মেসি হয়তো আর পেছনে তাকাবেন না। বার্সেলোনার আগামী বোর্ড নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী টনি ফ্রেক্সা এমনই মনে করছেন।

তার মতে, মেসি একা তো সব করতে পারবেন না। তাকে একটা দল দিতে হবে। মেসি বুঝে গেছেন, সাফল্য পাওয়ার মতো দল বার্সার এখন নেই। তবে মেসির চলে যাওয়াও বার্সার জন্য নতুন দল গঠনের সুযোগ।

টনি ফ্রেক্সা বলেছেন, ‘বিভিন্ন মাধ্যমে যা জেনেছি, অনেক বছর ধরেই মেসি অনেক কিছু দেখেছেন, বুঝেছেন। এখন তাই মনস্থির করে ফেলেছেন। আমার মনে হয় না, মেসি আর পেছনে ঘুরবেন। তার মতো ফুটবলার সর্বোচ্চ সাফল্য পেতে চায়। কিন্তু সে একা সবকিছু করতে পারবেন না। ২০১৫ সালে ট্রেবল জয়ের পর, মেসি চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা মিস করছেন। এটাই তাকে সবচেয়ে উদ্বিগ্ন করেছে।’

মেসির নানান ক্লাবে যাওয়ার গুঞ্জন শোনা গেলেও ম্যানসিটি দৌড়ে এগিয়ে আছে। মেসিরও প্রিমিয়ার লিগ এবং ম্যানসিটিকে বেশি পছন্দ। সেখানে আছেন মেসির গুরু পেপ গার্দিওয়ালা। ফ্রেক্সা তাই মনে করছেন, ম্যানসিটিতেই যাবেন মেসি। কারণ গার্দিওয়ালার সঙ্গে মেসির কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে। সিটিতে যাওয়াই হবে যুক্তিযুক্ত সিদ্ধান্ত।

আর মেসির চলে যেতে চাওয়া, বার্সার জন্যও নতুন প্রজন্ম দাঁড় করাবার সুযোগ বলে মনে করেন প্রেসিডেন্ট পদের এই প্রতিদ্বন্দ্বী, ‘এক পর্যায়ে সবকিছুরই সমাপ্তি ঘটে। ভবিষ্যতে বার্সা মেসির মতো কাউকে নাও পেতে পারে। তারপরও মেসির চলে যাওয়া বার্সার জন্য ভালো হবে। তাতে বার্সা একজনের ওপর নির্ভর করে খেলার পথ থেকে সরে আসবে। এতোদিন বার্সার কৌশল ছিল, মেসিকে বল দেওয়া ও জাদুকরী কিছুর অপেক্ষা করা। তাকে ছাড়া এখন দল হিসেবেই খেলতে হবে বার্সার।’