পুরো মৌসুম বসে কাটালে তবেই মেসিকে বিনামূল্যে ছাড়বে বার্সা

দীর্ঘ সম্পর্ক চুকিয়ে বার্সেলোনা ছেড়ে যেতে চাইলেও ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর রিলিজ ক্লজের কারণে ঝুলে আছেন লিওনেল মেসি। তবে রিলিজ ক্লজের এই মোটা অঙ্ক ছাড়াই তাকে ক্লাব ছাড়ার পথ করে দিতে একটা কঠিন শর্ত দিতে যাচ্ছে কাতালান জায়ান্টরা। মেসি কোনো ট্রান্সফার ফি ছাড়াই ক্লাব ছাড়তে পারবেন, তবে তাকে নিশ্চয়তা দিতে হবে আগামী মৌসুমে তিনি কোন ফুটবল খেলতে পারবেন না!

বিশ্বস্ত সূত্রের বরাত দিয়ে এমন খবরই দিয়েছে ক্রীড়াবিষয়ক ওয়েব পোর্টাল ইএসপিএন।

মেসির চুক্তিতে বহুল আলোচিত ধারা নিয়ে বার্সার ব্যাখ্যা হলো, তিনি বিনা ট্রান্সফার ফিতে ক্লাব ছাড়তে পারবেন কিন্তু পরের মৌসুমের জন্য বেতন পাবেন না এবং পরবর্তী গ্রীষ্মের আগে নতুন ক্লাবে যোগ দিতে পারবেন না।

ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জেতা ৩৩ বছর বয়েসী ফুটবল মহাতারকার সঙ্গে ২০২১ সাল পর্যন্ত চুক্তি আছে বার্সার। তবে চুক্তির একটি ধারা অনুযায়ী প্রতি মৌসুমের শেষে নির্দিষ্ট একটা সময়ের মধ্যে ট্রান্সফার ফি ছাড়াই ক্লাব বদলের সুযোগ ছিল তার। এবার পূর্বের সূচি অনুযায়ী মৌসুম শেষ হওয়ার কথা জুন মাসে।

বার্সা বোর্ডের দাবি, চুক্তির ওই শর্ত অনুসারে গেল ১০ জুনের মধ্যে মেসিকে তার সিদ্ধান্তের কথা জানাতে হতো। তখন বিনামূল্যে তাকে ক্লাব ছাড়ার সুযোগ দেওয়া হতো। কিন্তু আরও অনেক আগেই পেরিয়ে গেছে সেই সময়। তাই চুক্তির ওই ধারা এখন আর কার্যকর হবে না বলে মত দিয়েছেন স্প্যানিশ ক্লাবটির কর্মকর্তারা।

মেসি ও তার আইনজীবীরা মনে করছেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে ইউরোপিয়ান ফুটবলের ২০১৯-২০ মৌসুম স্বাভাবিকের চেয়ে দীর্ঘায়িত হয়েছে। তাই বিশেষ শর্তটি মেয়াদও বাড়বে। অর্থাৎ ৩১ আগস্ট পর্যন্ত তা কার্যকর করা যাবে। আর মেসি যেহেতু এই সময়ের আগেই তার ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন, সেহেতু বার্সা ছাড়তে তার কোনো বাধা নেই।

মেসির আইনজীবিদের দমিয়ে দিয়েছে লা লিগা কর্তৃপক্ষের বিবৃতি। তারা স্পষ্ট জানায়, শর্ত অনুযায়ী এই মুহূর্তে বার্সেলোনা থেকে মেসিকে অন্য কোন ক্লাব নিতে হলে রিলিজ ক্লজের পুরো ৭০০ মিলিয়ন ইউরো দিতেই হবে।

বেশ কয়েকজন আইন বিশেষজ্ঞের মতামতের কথা জানিয়ে ইএসপিএন জানিয়েছে, মেসির সঙ্গে বার্সার চুক্তিকে ব্যাখ্যা করা যাবে বিভিন্নভাবে। কোন একটা জায়গায় পৌঁছাতে না পারলে তাই ক্রীড়া আদালতে হতে পারে এর মীমাংসা।

সেক্ষেত্রেও আগামী মৌসুম খেলার বাইরে থাকার শঙ্কার মধ্যে পড়ে যেতে পারেন বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা এই তারকা।

ইএসপিএন তাদের খবরে আরও জানায়, মেসিকে আইনি চাপ দেওয়ার পাশাপাশি আরও দুই বছর বার্সেলোনায় থাকার প্রস্তাবও দিয়ে রেখেছে বার্সা বোর্ড।

গত মঙ্গলবার ২০ বছরের সম্পর্ক চুকিয়ে ফেলার ইচ্ছার কথা জানিয়ে বার্সা কর্তৃপক্ষকে বার্তা পাঠান মেসি। এরপর থেকেই এই নিয়ে ফুটবল দুনিয়ায় শুরু হয় তুমুল উত্তাপ। শেষ পর্যন্ত রাগ, অভিমান ভেঙ্গে মেসি সিদ্ধান্ত বদলে ফেলবেন বলে আশাবাদী ছিলেন সমর্থকরা। কিন্তু রোববার সবাইকে হতাশ করে ক্লাবের ডাকে করোনাভাইরাস পরীক্ষায় অংশ নেননি মেসি। তাতে আগামী মৌসুম উপলক্ষে ক্লাবের অনুশীলনে তার যোগ না দেওয়ার বিষয় স্পষ্ট হয়ে যায়।