লিভারপুলকে হারিয়ে কম্যুনিটি শিল্ড জিতলো আর্সেনাল

সকালের সূর্য যদি সারাদিনের পূর্বাভাস দেয়, তাহলে বলতে হবে আসন্ন প্রিমিয়ার লিগে দারুণ করবে মিকেল আর্তেতার আর্সেনাল। গতবার অর্থাৎ করোনাপীড়িত ২০১৯-২০ মৌসুমের মতো আট নম্বরে নাম অন্তত লেখাবে না। লিভারপুলকে নতুন মৌসুমের সূচনাকারী ম্যাচে হারিয়ে সেটি তারা বুঝিয়ে দিল। শনিবার নির্ধারিত সময়ে ১-১ থাকা ম্যাচটি টাইব্রেকারে (৫-৪) জিতে কম্যুনিটি শিল্ড হাতে তুলেছে গানাররা।

গত মৌসুমে লিভারপুলকে হারিয়ে কম্যুনিটি শিল্ড জিতেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। ড্র থাকা (১-১) টাইব্রেকারে ৫-৪ করে জয়ী হয়েছিল তারা। গতবার স্পট কিক থেকে গোল করতে পারেননি ভাইনালডাম। এবার তাই দুর্ভাগ্যের কোপে যাতে না পড়তে হয়, যোগ করা সময়ে ডাচ মিডফিল্ডারকে বদলি করে রিয়ান ব্রুষ্টারকে মাঠে নামান লিভারপুল কোচ। আর কী আশ্চর্য, পেনাল্টি নষ্ট করেছেন ব্রুষ্টারই! আর ওটাই মৌসুমের প্রথম ট্রফিটি জিততে দিল না ৩০ বছর পর গত মৌসুমে প্রথম প্রিমিয়ার লিগজয়ী লাল দলকে।

পিয়েরে–এমেরিক অবামেয়াংয়ের সঙ্গে ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামের প্রেম চলছেই। মাত্রই চার সপ্তাহ আগে দলের দুটি গোলই করে আর্সেনালকে এফএ কাপ জিতিয়েছেন। এদিন যেমন প্রথম গোল করে আর্সেনালকে ম্যাচে এগিয়ে দেন অধিনায়ক, আবার মাথা ঠান্ডা রেখে পঞ্চম স্পট কিকে গোল করে জয়ের উৎসবেও ভাসিয়েছেন দলকে। তবে ম্যাচের সেরার পুরস্কার কিন্তু গ্যাবনিজ স্ট্রাইকার জেতেননি, সেটি উঠেছে আইন্সলি মেইটল্যান্ড-নাইলসের হাতে। ২৩তম জন্মদিনে এই অলরাউন্ড ফুটবলার উইংব্যাক হিসেবে রক্ষণে ছিলেন অসাধারণ, আবার ওভারল্যাপ করে আক্রমণেও উঠেছেন সমানে।

প্রথমার্ধে ভালো খেলেছে আর্সেনাল, ইয়ুর্গেন ক্লপের দল ঘুরে দাঁড়িয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। ১২ মিনিটে অবামেয়াংয়ের দেওয়া গোল ৭৩ মিনিটে শোধ করে দিয়েছেন লিভারপুলের বদলি অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার মিনামিনো। রক্ষণভাগকে দারুণভাবে সংগঠিত রেখে গানাররা মানে-সালাহ-ফিরমিনোদের চাপ সামলেছে দ্বিতীয়ার্ধে। যদিও একেবারেই শেষদিকে পাল্টা আক্রমণ থেকে ম্যাচটি ৯০ মিনিটের মধ্যেই বের করে নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিল আর্সেনাল।

করোনার পর ফের শুরু হওয়া ২০১৯-২০ প্রিমিয়ার লিগ জয় নিশ্চিত করার পর আর্সেনালের কাছে হেরেছে প্রতাপশালী লিভারপুল। আবার একই প্রতিপক্ষের কাছে হারলো নতুন মৌসুমের সূচনায়। আক্রমণাত্মক লিভারপুল কি একটু ধূসর হতে চলেছে? তারা অবশ্য বলতে পারে, চোটের কারণে এ ম্যাচে পাওয়া যায়নি জর্ডান হেন্ডারসনকে, ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ডকে। কিন্তু আর্সেনালও এ ম্যাচে পায়নি আলেক্সান্দ্রে লাকাজেত ও নিকোলাস পেপেকে। আসলে যোগত্যম দল হিসেবেই কম্যুনিটি শিল্ড জিতেছে গানাররা।

লিভারপুলকে (১৫ বার) টপকে ১৬তম বারের মতো কম্যুনিটি শিল্ড জিতলো আর্সেনাল। তাদের চেয়ে বেশিবার মৌসুমসূচক ট্রফিটি জিতেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (২১)।