ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে বিয়ামের দুই শিক্ষক বরখাস্ত

বগুড়ায় ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে বিয়াম মডেল স্কুল ও কলেজের দুই প্রভাষককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। শুক্রবার (২৮ আগস্ট) রাতে জেলা প্রশাসকের বাসভবনে গভর্নিং বডির সভায় ওই সিদ্ধান্ত নেয়া হয। সেই সঙ্গে তিন সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করা হয়। ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজার রহমান এই তথ্য জানান।

অভিযুক্ত শিক্ষকরা হলেন, আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ও আবদুল মোতালেব। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল এন্ড কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করে সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দেন এক সাবেক ছাত্রী। ওই পোস্টে ঘটনা ধামাচাপা দেবার অনুরোধ করার অডিও রেকর্ড সংযুক্ত করেন ওই ছাত্রী। পোস্ট দেবার মুহুর্তেই এই ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। পরে ওই শিক্ষক নানাভাবে ছাত্রী ও তার পরিবারকে হুমকি ধামকি দিচ্ছেন বলে জানা গেছে। এছাড়াও আবদুল মোতালেব নামে আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ করে আরেক ছাত্রী। এই দুই প্রভাষকের যৌন হয়রানির বিষয়টি গতকাল শুক্রবার ভাইরাল হয়। পরে গভর্নিং বডির সিদ্ধান্তে শুক্রবার রাতেই অভিযুক্ত দুই প্রভাষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সেই সঙ্গে বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মাসুম আলী বেগমকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন, বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিজুর রহমান ও বিয়াম মডেল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান। তদন্ত কমিটিকে দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন অধ্যক্ষ।