রেকর্ড সর্বোচ্চে স্বর্ণের দাম

করোনা মহামারীর সময় জ্বালানি তেলসহ বিভিন্ন পণ্যের বাজার যখন টালমাটাল অবস্থা পার করছে তখন ব্যতিক্রম স্বর্ণ। মহামারীর মধ্যে নিরাপদ বিনিয়োগ বিবেচনায় স্বর্ণের চাহিদা ও দাম ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। একের পর এক রেকর্ড ভাঙছে মূল্যবান ধাতুটির বাজার। এ ধারাবাহিকতায় নতুন ইতিহাস গড়েছে স্বর্ণ। মূল্যবান ধাতুটির দাম বেড়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ অবস্থানে উঠেছে। খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় নিলে স্বর্ণের দাম কমার দৃশ্যমান কোনো লক্ষণ নেই। ফলে আগামী দিনগুলোয় আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবান ধাতুটির দাম আরো চাঙ্গা হয়ে উঠতে পারে। তাই সময়টা এখন স্বর্ণের, স্বর্ণে বিনিয়োগের—এ কথা বললে বাড়িয়ে বলা হবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের স্পট মার্কেটে গত শুক্রবার প্রতি আউন্স স্বর্ণ ১ হাজার ৯০২ ডলার ২ সেন্টে বেচাকেনা হয়। মার্চের তুলনায় ওইদিন মূল্যবান ধাতুটি প্রায় ৩০ শতাংশ বেশি দামে বিক্রি হয়। পরদিন স্পট মার্কেটে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ওঠে ১ হাজার ৯২০ ডলারে। এদিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম আগের দিনের তুলনায় ১ শতাংশের বেশি বেড়ে ১ হাজার ৯২২ ডলার ৭০ সেন্টে উন্নীত হয়। ইতিহাসে এটাই স্বর্ণের সর্বোচ্চ দামের রেকর্ড।

তবে মূল্যবৃদ্ধির এ রেকর্ড ওখানেই থেমে থাকেনি। সর্বশেষ কার্যদিবসের মধ্যভাগে যুক্তরাষ্ট্রের স্পট মার্কেটে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম উঠেছে ১ হাজার ৯৪৪ ডলার ৭১ সেন্টে। এর আগে ২০১১ সালে সবচেয়ে বেশি দামে স্বর্ণ বিক্রির রেকর্ড হয়েছিল। গতকাল সেই তুলনায় প্রতি আউন্স স্বর্ণ অন্তত ২০ ডলার বেশিতে বিক্রি হয়েছে। আর এদিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম উঠেছে ১ হাজার ৯৬৬ ডলার ৫০ সেন্টে।