প্রেমে বাধা দেয়ায় হাতাহাতিঃ ছুঁড়ে মারা হলো গরম তেল

ফেনীর সোনাগাজীতে প্রেমিক যুগলের কথা বলার জেরে সংঘর্ষের ঘটনায় এক চা দোকানির গরম তেলে তিনজনকে ঝলসে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।
আহতরা হলেন রকি, ইকবাল হোসেন ও মুন্না। আহতদেরকে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার চর মজলিশপুর ইউপির দশআনি গ্রামের ড্রাইভার দোকান নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, দশআনী গ্রামের সুলতান আহমেদের ছেলে ওমর ফারুকের সঙ্গে একই এলাকার বসুমাঝি বাড়ির এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সোমবার বিকেলে প্রেমিক যুগল রাস্তায় দাঁড়িয়ে কথা বলতে দেখে একই গ্রামের ফকির আহমদের ছেলে মো. সবুজ বাধা দেয়। ফলে ফারুকের সঙ্গে সবুজের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে ইকবাল হোসেন সেন্টু ও স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থলে বিষয়টি মীমাংসা করতে যান। দুই পক্ষ তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় চা দোকানি সবুজের বাবা শহীদ উল্যাহকে মারধর শুরু করেন। এ সময় চা দোকানি সবুজ কড়াইয়ে থাকা গরম তেল নিক্ষেপ করলে তিনজন ও তার দোকানের কর্মচারী ঝলসে যায়।

সংঘর্ষে শহীদ উল্যাহ ও মো. ইলিয়াস আহত হন। পরবর্তীতে মাস্টার শামসুল হক ও ইউপি সদস্য আবু ইউসুফ মেম্বারের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।