যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনার ‘নতুন এপিসেন্টার’ হয়ে উঠছে রাশিয়া

যুক্তরাষ্ট্রের পর রাশিয়ায় কোভিড-নাইনটিনে দৈনিক আক্রান্তের হার এখন সবচেয়ে বেশি। রোববার (১০ মে) আল জাজিরায় প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটির কর্তৃপক্ষ ১১ হাজার ১২ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত করেছে। আর এনিয়ে সারাদেশে মোট কোভিড রোগী শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৯৬ হাজার ৮৮ জন।

রাশিয়ার করোনা ভাইরাস টাস্কফোর্স জানিয়েছে, নতুন করে সেখানে ৮৮ জন মারা গেছেন করোনায় আক্রান্ত হয়ে। আর সব মিলিয়ে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯১৫ জনে।

ফ্রান্স এবং জার্মানিকে ছাড়িয়ে করোনা রোগীর দিক দিয়ে পঞ্চম অবস্থানে উঠে এসেছে রাশিয়া। দেশটিতে যেভাবে গতিতে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে করোনার নতুন এপিসেন্টার হতে পারে রাশিয়া।

এ অবস্থায় পুরো মে মাসজুড়ে লকডাউন বাড়ানো হয়েছে, বেড়েছে কড়াকড়িও। এদিকে লকডাউন পরিস্থিতিতে অর্থ ও খাদ্য সংকটে দিন কাটছে অনেক বাংলাদেশির। এ অবস্থায় বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

দেশটিতে থাকা বাংলাদেশিদের মধ্যে এখন ব্যাপক হারে করোনা ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা অনেকের। কাজ হারিয়ে বিপাকেও রয়েছেন বহু প্রবাসী। বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে দ্রুত দেশে ফিরে আসার আকুতি তাদের।

একজন শিক্ষার্থী জানান, আমরা যারা বাংলাদেশিরা আছি, আমরা অনেক সমস্যায় আছি। সব বন্ধ থাকায় আমরা দেশ থেকে কোন সাহায্য নিতে পারছি না।

করোনা মোকাবিলায় হিমমিশ খাওয়ায় ইতোমধ্যে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের জনপ্রিয়তায় ধস নেমেছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। মৃত্যুর প্রকৃত সংখ্যা লুকানোর অভিযোগও উঠেছে রুশ সরকারের বিরুদ্ধে