জুনেই দেশে করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল, ২০ মে মাসের মধ্যে বাজারে ‘রেমেডেসিভির’

চলতি বছরে জুন মাসেই দেশে করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এবং ২০ মে’র মধ্যে এই ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় ‘রেমেডেসিভির’ ওষুধের ব্যবহার শুরু হবে।

বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরে কয়েকটি ওষুধ কোম্পানির সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহাবুবুর রহমান।

প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী ভ্যাকসিন আবিষ্কারের প্রচেষ্টা যখন চলছে বাংলাদেশ তখন বিভিন্ন দেশের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে। এরই মধ্যে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও চীনের একটি ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে আলোচনা কিছুটা এগিয়েছে। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর আশাবাদী আগামী জুনেই বাংলাদেশে ভ্যাকসিনের ট্র্যায়াল শুরু করতে পারবে।

মেজর জেনারেল মাহাবুবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) সাথে অক্সফোর্ড এবং চায়না দুটোরই ভ্যাকদিনের ট্রায়ালের কথা চলছে। এর প্রয়োজনও আছে। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের যাদের শরীরে এই ভ্যাকসিন কাজ করছে, আমাদের দেশে তা নাও করতে পারে। করোনা প্রতিরোধে রেমডিসিভির প্রয়োগে ভালো ফল পাওয়ার কথা জানাচ্ছে বিভিন্ন দেশ। বাংলাদেশ এরই মধ্যে আটটি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানকে এই ওষুধ উৎপাদনের অনুমতি দিয়েছে। চলতি মাসের ২০ তারিখের মধ্যে রেমডিসিভির পাওয়ার আশা করছি।

তিনি বলেন, রেমডিসিভির আসলে ইবোলা রোগের জন্য হয়েছিল। এটা পুরনো ওষুধ। আমরা ধারণা করেছি এটা কাজে আসতে পারে। ভ্যাকসিন উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে এমন দুটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে রয়েছে।