নতুন ভয়ঙ্কর করোনাভাইরাসের সন্ধান দাবি মার্কিন বিজ্ঞানীদের

করোনাভাইরাসের আরও শক্তিশালী ও ছোঁয়াচে একটি সংস্করণের সন্ধান পাওয়া গেছে বলে সতর্ক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাষ্ট্রের লস আলামস ন্যাশনাল ল্যাবরেটরিতে কর্মরত একদল মার্কিন গবেষক দাবি করেছেন, এই নতুন ধরণের (স্ট্রেইন) শক্তিশালী ও ছোঁয়াচে করোনাভাইরাস ইতিমধ্যেই বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে গেছে। খবর লস অ্যানজেলেস টাইমস এর।

বায়োআরজিভ নামে একটি পোর্টালে ওই বিজ্ঞানীরা তাদের ৩৩ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। এটি এখনও পিয়ার-রিভিউড বা অন্য বিজ্ঞানীদের দ্বারা পরীক্ষিত নয়। তবে এই সংকটের সময় পিয়ার-রিভিউ ব্যতীতই অনেক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ওই গবেষণা রিপোর্টে বলা হয়, ইউরোপে ফেব্রুয়ারির দিকে ভাইরাসের এই নতুন ধাঁচ দৃশ্যমান হয়। এদিকে মধ্য-মার্চের পর থেকে এটিই করোনাভাইরাসের সবচেয়ে শক্তিশালী স্ট্রেইন। প্রতিবেদনে বলা হয়, “এই ভাইরাস শুধু দ্রুত ছড়ায়ই না, পাশাপাশি এটি প্রথম দফায় সুস্থ রোগীকে আবারও দ্বিতীয় দফায়ও আক্রান্ত করতে পারে।”

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই ভাইরাসের বাইরের কাঁটা সদৃশ অংশের পরিবর্তন ঘটেছে। ফলে ভাইরাসটি এখন খুব সহজেই মানুষের শ্বাসনালীতে প্রবেশ করতে পারছে। রিপোর্টে লেখকরা আরও বলেন, বিশ্বকে সচেতন করার লক্ষ্যে এই হুঁশিয়ারি। যাতে করে বিশ্বব্যাপী ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে বিজ্ঞানীরা এই প্রাণঘাতী স্ট্রেইনের বিষয়ে প্রস্তুতি নিতে পারে। তবে কিভাবে ভাইরাসটি তার পূর্বসূরিদের চেয়ে আরও বেশি শক্তিশালী হয়েছে, সে সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।

বিজ্ঞানীদের দলনেতা বেট করবার নিজের ফেসবুক পেইজে লিখেছেন, ‘এটি অত্যন্ত উদ্বেগের যে ভাইরাসটি দ্রুতগতিতে ছড়াচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, এই ভাইরাস খুব দ্রুতই পূর্বের রোগের স্থান দখলে নেয়।