মিশরের স্বৈ’রশাসক শাসক হোসনি মোবারকের জীবন কাহিনী

আরব বসন্তের ধা’ক্কায় ২০১১ সালের জানুয়ারিতে শুরু হওয়া ১৮ দিনের গ’ণবিপ্লবে ওই বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি ক্ষ’মতাচ্যুত হন মোবারক। এর মাধ্যমে তার ৩০ বছরের শাসনের অবসান ঘটে।
ক্ষ’মতা জবরদখল করে টানা তিন দশকের বেশি সময় মিসর শা’সন করেছেন স্বৈ’রশাসক হোসনি মোবারক।

বিবিসি জানায়, মিসরের উত্তরাঞ্চলে কাফর আল মেসেলহায় ১৯২৮ সালের ৪ঠা মে জন্ম নেয়া হোসনি মোবারক ছিলেন সা’মরিক বাহি’নীর লোক ।

দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে আসা মোবারক ১৯৪৯ সালে মিসরের মিলিটারি একাডেমি থেকে গ্রাজুয়েশন করেন। পরে ১৯৫০ সালে বিমান বাহিনীতে বদলি হয়ে কমিশন প্রাপ্ত হন।

১৯৭২ সালে বিমান বাহি’নীর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব লাভ করেন। মূলত বিমান বা’হিনী প্রধান ও প্রতির’ক্ষা বিষয়ক ডেপুটি মিনিস্টার হওয়ার পরই তার নাম ছড়িয়ে পড়ে।

১৯৭৩ সালে আরব-ইসরাইল যু’দ্ধের শুরুতে ইসরাইলি বাহিনীর ওপর হা’মলার তিনিই ছিলেন পরিক’ল্পনাকারী। পরে ১৯৭৫ সালে তিনি মিশরের ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

মিশরের চতুর্থ প্রেসিডেন্ট হিসেবে ১৯৮১ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট পদে বসেন। এরপর তিনি টানা ৩০ বছর দেশটি শা’সন করেন।

বিক্ষোভকারী হ’ত্যার নি’র্দেশদাতা হিসেবে ২০১২ সালে নিম্ন আদালত হোসনি মোবারককে যাব’জ্জীবন কারাদ’ণ্ড দিয়েছিল। কিন্তু ওই রা’য়ের বি’রুদ্ধে দুইবার উচ্চ আ’দালতে আপিল করেন মোবারক।