এখনও জ্বলছে দিল্লি, পুলিশের পর গু’লিবি’দ্ধ সাংবাদিক, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০

গতকাল সোমবার ভারত সফরে এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর এর মধ্যেই উত্তপ্ত হয়ে পড়েছে ভারতের দিল্লি। নয়াদিল্লিতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। নিহতদের মধ্যে এক পুলিশ কর্মকর্তাও রয়েছেন।

এদিকে হিংসার আগুনে এখনো জ্বলছে দিল্লি। মৌজপুর, ব্রহ্মপুরী, ভজনপুরা চক, গোকুলপুরী-সহ বিভিন্ন এলাকায় চলছে দফায় দফায় সং’ঘর্ষ।

এ ব্যাপারে ভারতের সংবাদ মাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়া ও এই সময় জানিয়েছে, দিল্লিতে হিংসার ঘটনায় মৃ’ত বেড়ে ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২০০। যদিও সন্ধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করে দিল্লি পুলিশের তরফে দাবি করা হয়েছে, পরিস্থিতি এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। আহতদের মধ্যে ৫৬ জন পুলিশকর্মী। বিভিন্ন এলাকায় ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারি চালানো হচ্ছে।

এদিকে মৌজপুরে আক্রান্ত হয়েছেন সাংবাদিকরা। গু’লিবিদ্ধ হয়েছেন একটি নিউ চ্যানেলের সাংবাদিক। আহত হয়েছেন আরও এক সাংবাদিক। গোকুলপুরীর বাজারে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পুড়ে গিয়েছে বহু দোকান।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে দু পক্ষের মধ্যে খণ্ডযুদ্ধে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে ভজনপুরা চক। জ্বালিয়ে দেওয়া হল বহু দোকান। ভজনপুরা, চাঁদবাগ ও কারাওয়ালনগরের রাস্তায় লাঠি ও রড হাতে দাপিয়ে বে়ড়াল বহু মানুষ।