উইঘুরদের সমর্থন করে চীনকে কড়া হুঁ’শিয়ারি তুরস্কের

চীনে নিষ্পাপ ও অসহায় উইঘুর মুসলিমদের ধরে ধরে আ’টক শি’বিরে রাখা হয়েছে। সেখানে তাদের মধ্যে চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে চীনের জাতীয়তাবাদী মতাদর্শ। জোর করে শেখানো হচ্ছে তাদের মান্দারিন ভাষা।

চীনের উদ্দেশ্যে এমনই বক্তব্য রেখেছেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগ্লু।

জার্মানির মিউনিখে আয়োজিত নিরাপত্তা সম্মেলনে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই-র সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন কাভুসোগ্লু। সেখানেই চীনের উদ্দেশ্যে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানের হয়ে কড়া বার্তা দিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘সব উইঘুর উ’গ্রবাদী নয়, প্রত্যেক জাতি ও ধর্মের মানুষ থেকেই স’ন্ত্রাসী তৈরি হয়ে থাকতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তুর্কি, উইঘুর, হান, বৌদ্ধ বা খ্রিস্টান, কোনো ধর্মের বা জাতির মানুষকেই উ’গ্রবাদী বলে চি’হ্নিত করা উচিত নয়। সব জাতি বা গো’ষ্ঠী থেকেই জ’ঙ্গিরা উঠে আসতে পারে।’

কাভুসোগ্লু চীনকে এও বোঝানোর চেষ্টা করেছেন, উইঘুর, তুর্কিরা এখন চীনা নাগরিক, তাই চীনের উচিত হবে তাদের যথাযোগ্য মর্যাদা দেওয়া। তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বেজিংয়ের উইঘুর বি’রোধী মনেভাবের কড়া নি’ন্দা জানিয়েছেন। বিশ্বের বহু দেশও চীনকে উইঘুর ইস্যুতে কোণঠাসা করেছে।