অল-আউটের পথে জিম্বাবুয়ে, দেখে নিন স্কোর

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মূল সিরিজ শুরু আগে, আজ দু’দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের মুখোমুখি হয়েছে জিম্বাবুয়ে। জিম্বাবুয়ের ইচ্ছা পূরণ করতে কোন টস ছাড়াই অতিথিদের আবদার মেনে নেন বিসিবি একাদশ অধিনায়ক আল আমিন জুনিয়র। সাভারের বিকেএসপিতে সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

এদিকে শরিফুল ইসলামের বলে প্রিন্স মাসভাউরের ক্যাচ হাতছাড়া করেছিলেন আল-আমিন জুনিয়র। মধ্যাহ্ন ভোজের বিরতির পর মাসভাউরেকে আউট করে যেন সেই ভুলেরই প্রায়শ্চিত করলেন আল-আমিন। অধিনায়কের হাত ধরে ম্যাচে প্রথম সাফল্যের মুখ দেখেছে স্বাগতিকরা।

প্রথম সেশনে পাঁচ বোলার ব্যবহার করলেও কাঙ্ক্ষিত সাফল্যের দেখা পায়নি বিসিবি একাদশ। দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে স্বাগতিকদের অপেক্ষার অবসান ঘটান আল-আমিন। ব্যক্তিগত ৪৫ রানে মাসভাউরেকে আউট করেন তিনি।

এরপর মুজিঙ্গানিয়ামা-আরভিনকে বেশিক্ষণ টিকতে দিলেন না শাহাদত ও শরিফুল। ৪১তম ওভারের পঞ্চম বলে আরভিনকে ব্যক্তিগত ১০ রানে ফেরান শাহাদাত। পরের ওভারেই মুজিঙ্গানিয়ামাকে আকবর আলীর তালুবন্দি করে ব্যক্তিগত ১৭ রানে ফেরান শরিফুল।

এরপর সপ্তম বোলার হিসেবে বল করতে আসেন শাহাদাত। এরপরই শুরু হয় তার বোলিং তোপ। ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ওভারে ক্রেইগ আরভিনকে আউট করেন তিনি। এরপর ব্যক্তিগত ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলে রাগিজ চাকাভা ও তৃতীয় বলে টিনোটেন্ডা মুতোম্বোজির উইকেট তুলে নেন তিনি। যার ফলে দলীয় ১৪৭ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় সফরকারীরা।

এদিকে কেভিন কাসুজার (৭০) দলীয় ১৭৭ রানে বিদায়ের পর মনে হচ্ছিল ২০০ এর নিচেই থামবে জিম্বাবুয়ের ইনিংস। তবে সেই শঙ্কা দূর করে সপ্তম উইকেটে প্রতিরোধ গড়েন মারুমা ও মুম্বার। দলীয় সংগ্রহ বাড়ানোর পাশাপাশি প্রতিপক্ষ শিবিরের হুমকি হয়ে দাঁড়ান এ দুজন।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সংগ্রহ ৭৮ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ২৩৪ রান। স্বাগতিক বোলারদের মধ্যে এখনো পর্যন্ত শাহাদাত হোসেন সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট লাভ করেছেন। তাছাড়া আল-আমিন দুটি ও শরিফুল ইসলাম নিজের নামের পাশে যোগ করেছেন একটি উইকেট।