মাশরাফি-পাপনের বৈঠক শেষে আসছে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কা সফরেই শেষ ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। সময়ের হিসেবে যা প্রায় ৭ মাসের কাছাকাছি। অবসর নিয়ে এমনিতে মাশরাফি-বোর্ড দু পক্ষই দ্বিধায় রেখেছেন সংবাদ মাধ্যম থেকে শুরু করে সাধারন ভক্ত সমর্থকদের। ঘরের মাঠে মার্চের ১ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ যত সামনে আসছে মাশরাফি খেলছেন কি খেলছেন না এই প্রশ্ন ততই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে।

এদিকে মাশরাফি রাজি হলে দেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম স্মরণীয় বিদায়ী আয়োজনও করতে চেয়েছিল বোর্ড। কিন্তু মাশরাফি সাফ জানিয়েছেন ক্রিকেট থেকে এখনই অবসর নয়, জাতীয় দলে বিবেচিত না হলে খেলবেন ঘরোয়া ক্রিকেটে হলেও। তার অমন বক্তব্যের পরই জলঘোলা হচ্ছে আরও, দল নির্বাচনে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে নির্বাচক, টিম ম্যানেজমেন্টকে।

গতকাল বাংলাদেশের টেস্ট স্কোয়াড ঘোষণার পর ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান জানিয়েছেন ওয়ানডে দলও ঘোষণা করা হবে ২২-২৩ তারিখের দিকে। মাশরাফি খেলা না খেলার সিদ্ধান্ত আসবে বোর্ড সভাপতির সাথে মাশরাফির বৈঠকের পরই।

এ ব্যাপারে গতকাল রবিবার দুপুরে মিরপুরে আকরাম খান বলেন, ‘ওয়ানডেটাও আমরা ইন শা আল্লাহ ২২-২৩ তারিখের দিকে দিবো। তো সেটার ব্যাপারে যেহেতু মাশরাফি কিন্তু আমাদের লিজেন্ড, সে হল সবচেয়ে সফল অধিনায়ক। তো ওর ব্যাপারটা আমাদের মাননীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট ওর সাথে আলাপ করে তখন সিদ্ধান্তটা দিবে। কারণ এটা আমার মনে হয় ওকে সম্মান দেখানোর জন্য সবচেয়ে সেরা পথ। তো এটার ব্যাপারে বসে মনে হয় সিদ্ধান্ত নিবে। মানে ও কি খেলতে চায়, কি খেলতে চায়না বা চালিয়ে নিতে চায় কি চায় না।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদি ও খেলে ওটাতো কোন প্রশ্ন নেই আর যদি না খেলে তাহলে মনে করেন আপনার সিনিয়র প্লেয়ার যারা আছে ওদের থেকেই নিতে হবে কারণ যারা নতুন আসছে, জুনিয়র যারা আছে আমার মনে হয় তাদের সময় দেওয়া উচিৎ।’