বোরকা নিষিদ্ধের দাবি করে নিষিদ্ধ হলেন মন্ত্রী

নারীদের নিরপদে রাখার জন্য অন্যতম পোশাক হচ্ছে বোরকা। বোরকা নিয়ে ফের বিতর্কিত মন্তব্য করে দলকে বিড়ম্বনায় ফেলেছেন বিজেপির নেতা ও মন্ত্রী রঘুরাজ সিং। রঘুরাজ সিংকে গতকাল সোমবার শোকজ করল বিজেপি। তাঁর বিরুদ্ধে সংগঠনের নীতিবিরোধী কাজ করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

জানা যায়, উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী রঘুরাজ সিং। যোগী আদিত্যনাথ সরকার মন্ত্রিসভার সদস্য তিনি। দিল্লির শাহীনবাগ আন্দোলনের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, ‘দেশে বোরকা নিষিদ্ধ করে দেওয়া উচিত।’ কেন্দ্র ও রাজ্যের কাছে এই মর্মে আর্জিও পেশ করেন বিজেপির এই মন্ত্রী। আন্দোলনের নামে বোরখার অপব্যবহার হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন। সোমবারই বিজেপির এই নেতাকে শোকজ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাত্‍‌কারে বিজেপির এই বর্ষীয়ান নেতা বলেন, ‘শ্রীলঙ্কা, জাপান ও আমেরিকার পাশাপাশি অমুসলিম দেশগুলো ইতিমধ্যে বোরকা নিষিদ্ধ করেছে। তাহলে ভারতে নয় কেন?’ যোগী আদিত্যনাথের সরকার অবশ্য এই বিতর্ক থেকে নিজেদের দূরত্ব বজায় রেখেছে।

এদিকে উত্তরপ্রদেশ সরকারের মুখপাত্র, মন্ত্রী সিদ্ধার্থনাথ সিং বলেন, ‘এটা কখনোই সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি নয়। আমরা প্রত্যেকের পোশাকের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি।’

যোগীর মুখপাত্র মনে করেন, ওই মন্ত্রীর বক্তব্যে আরও সংযম থাকা উচিত। এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে লখনউয়ের ক্লক টাওয়ারে অবস্থানরত সিএএর প্রতিবাদী নারীরা গেরুয়া বাহিনীর বিরুদ্ধে তোপ দাগেন।

এ ব্যাপারে তারা বলেন, মন্ত্রীর মন্তব্যে তাঁর দলেরই প্রতিফলন ঘটেছে। আন্দোলনরত এই নারীদের কথায়, বোরকা যদি গ্রহণযোগ্য নাই-ই হয়, তা হলে বিজেপি কেন তার সমর্থকদের বোরকা পরিয়ে সিএএ-বিরোধী মিছিলে পাঠাচ্ছে? বিজেপি কর্মী গুঞ্জন কাপুর কেন বোরকা আড়ালে শাহীন বাগে এলেন, সেই প্রশ্নও তোলা হয়।