বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জয়টা হজম করতে পারেনি: মহসিন আলী

যুব বিশ্বকাপে ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের জয়ের পর বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিভিন্ন দেশের সাবেক খেলোয়াড়, ক্রীড়া তারকা ও সাংবাদিকরা। তবে এর উল্টোই দেখা যাচ্ছে পাকিস্তানের ক্রীড়া সাংবাদিকদের মাঝে।

এদিকে পাকিস্তানের বেশিরভাগ ক্রীড়া সাংবাদিকদের এখন দেখা যায় নিয়মিত ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা করতে ইউটিউবে। মূলত পাকিস্তানের চ্যানেল হলেও তারা ব্যস্ত থাকেন ভারতের খেলার আলোচনায় ও ভারতের গুনগানে। সেটা ভারত ভালো করক কিংবা খারাপ তা দেখেন না তারা।

কিন্তু এইবার অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালের আলোচনায় সেই পক্ষপাতিত্বের সীমাই অতিক্রম করে ফেলেছেন এক পাকিস্তানি ক্রীড়া সাংবাদিক মহসিন আলী।

যুব বিশ্বকাপ ফাইনালের আগে মহসিন আলী বলেন, ‘ভারতীয় অনূর্ধ্ব ১৯ দল অনেক ভালো ও শক্তিশালী একটি দল। জসওয়াল অসাধারণ একটি খেলোয়াড়। বাংলাদেশের তুলনায় ভারতীয় দল অনেক এগিয়ে। সবকিছু ঠিক থাকলে তাদেরই জেতার কথা। মনে হয়না এর ভিন্ন কোনো ফলাফল হবে। তবে যদি বাংলাদেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়তে পারে তবু খেলা ভারতের পক্ষে ৮০-২০ ভাগ ঝুকে থাকবে।’

কিন্তু ভারত ১৭৭ রানে অলআউট হয়ে যায় তখন আলোচনায় আসেন তার ইউটিউব চ্যানেলে। তখন মহসিন বলেন, ‘১৭৭ ফাইনালের জন্য অনেক রান। এখানে রান তাড়া করার চাপ থাকবে বাংলাদেশের উপর। ভারতের বোলিং অনেক শক্তিশালী। কার্তিক ত্যাগি, মিশ্র তারাও খুব ভালো পেসার। তাদের জন্য পিচ একই রকম থাকবে। তারা অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষেও ২৩০ এর মতো করে বড় ব্যবধানে জয় তুলে নেয়। তাদের বোলারদের লাইন লেন্থ এই বয়সে অসাধারণ। ভারতের এখানে ভালো সুযোগ আছে এই ম্যাচ জেতার। তাই আমার মতে এখনো এই ম্যাচ জেতার জন্য ফেভারিট ভারত। এই খেলা এখনো ভারতের পক্ষে ৬০ – ৪০ ঝুকে আছে।’

এ সময় বাংলাদেশের বোলিংয়ের প্রসঙ্গে মহসিন বলেন, ‘তারা ভালো করেছে এটা ঠিক তবে আপনাকে এটাও দেখতে হবে কন্ডিশন কেমন ছিলো। এইরকম কন্ডিশনে পেস থাকুক বা না থাকুক আপনি ভালো বোলিংই করবেন। তারা কন্ডিশনের খুব বেশি সুবিধা নিতে পারেনি। ১৫১ রানেও মাত্র ৩ উইকেট ছিলো। এরপর চাপে ও কিছু রান আউটে অল্প সময়ের মাঝেই ইনিংস গুটিয়ে যায়। ভারতীয় বোলারদের শুরুতে ভালো বল করতে হবে। আমি শতভাগ নিশ্চিত তারা খেলার শুরুর দিকেই উইকেট নিয়ে দেখাবে। যেহেতু বাংলাদেশিরা স্লেজিং করেছে তাই ভারতেরও পাল্টা স্লেজিং করা উচিত।’

এদিকে বাংলাদেশ চেজ কীভাবে করবে সেই প্রসঙ্গে মহসিন বলেন, ‘তাদের দেখে শুনে খেলতে হবে। তারা যদি কার্তিক ত্যাগি ও বিশ্নোই দুইজনের ২০ ওভারে ৩০-৪০ রানও নেয় তবু তাদের ভয় পাওয়া উচিত হবেনা। তবে আমার মতে বাংলাদেশ যদি ৪০ ওভারে বিনা উইকেটে ১০০ রানেও থাকে তবু তারা হারবে।’

তবে ফাইনালের পরবর্তী আলোচনায় তাদের চ্যানেলে দুই মহসিনকেই বেশ হতাশ দেখায়। মহসিন রাজা বলেন, ‘এটা আমার মতে একটি আপসেট ছিলো, আপসেট হিসেবে বাংলাদেশ জিতে গিয়েছে ম্যাচটি।’

এ সময় বাংলাদেশের উদযাপন নিয়ে সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘এটা আমার মনে হয়েছে জয়টা তারা হজম করতে পারেনি। খেলা শেষে আপনি জিতে গিয়েছেন তাহলে এখন এই ধরনের আচরণের দরকার কি? বাংলাদেশি দল যেভাবে স্লেজিং ও উদযাপন করেছে তা আমার মোটেই পছন্দ হয়নি। আজকের খেলার মূল নায়ক ছিলো জসওয়াল ও বিশ্নোই। ভারতের অধিনায়কের উচিত ছিলো টানা ৩০ ওভার কার্তিক, বিশ্নোই ও মিশ্রকে দিয়ে বোলিং করানো। তাহলে তারা আউট হয়ে যেতো। অসাধারণ বোলিং করেছে ভারতীয় বোলাররা, বিশেষ করে বিশ্নোই।’