সেরাতে নেই কেউ, অথচ চ্যাম্পিয়ন তারাই

ফাইনালের আগেরদিন আইসিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ওপেনার প্রান্তিক নওরোজ নাবিল বলছিলেন, ‘আমাদের দলের বিশেষত্ব হলো, কেউই হিরো হওয়ার জন্য খেলছে না। সবাইকে তার নির্দিষ্ট দায়িত্ব দেয়া আছে, সবাই সেটি পূরণ করছে। আমাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক অনেক ভালো। যা মাঠেও কাজে লাগছে।’

নাবিলের এ কথার প্রমাণ পুরো আসরজুড়েই দিয়েছে টাইগার যুবারা। এমন নয় যে কোনো একজন নির্দিষ্ট খেলোয়াড় একাই বাজিমাত করেছেন পুরো টুর্নামেন্টে। পুরোপুরি দলীয় প্রচেষ্টায় আসরের প্রথম ম্যাচ থেকে শুরু করে ফাইনাল পর্যন্ত খেলে, প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছে আকবর আলীর দল।

এমনকি ফাইনাল ম্যাচেও দেখা যায়নি কোনো একক নৈপুণ্য। বোলিংয়ে তানজিম হাসান সাকিব, শরীফুল ইসলাম ও অভিষেক দাস; পরে ব্যাটিং তানজিদ হাসান তামিম, পারভেজ হোসেন এমন ও অধিনায়ক আকবর আলি মিলে শেষ করেছেন ম্যাচ। দেশকে এনে দিয়েছেন স্মরণকালের সেরা সাফল্য।