করোনা, দাবানল, পঙ্গপাল এসব ম’হামারী আল্লাহর শক্তির নিদর্শন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যখন মু’সলিম বি’শ্বের নানাস্থানে অ’মানবিক হ’ত্যায’জ্ঞ চালাচ্ছে, নারী, শিশু, বৃদ্ধ, রোগী কেউ তাদের হা’মলা থেকে রেহাই পাচ্ছে না। যখন তারা নির্বিচারে হাসপাতালে, কিন্ডারগার্ডেনে, বরযাত্রীর ওপর, মসজিদ ও হেফজখানায় বো’মা বর্ষ’ণ করছে, তখন সারা মু’সলিম বি’শ্বে অসহায় মুসলিমরা কুনুতে নাজেলা পড়েছেন।

দুনিয়ার মানুষ কেবল দোয়া করেছে। মুজাহিদরা জি’হাদ চালিয়ে শেষ পর্যন্ত তাদের গর্বকে খর্ব করবে তখন আল্লাহর সৈনিকরা-এর প্রতিউত্তর দিবে।

কেনিয়ায় ফসলের ক্ষেতে পঙ্গপালের যে আ’ক্রমণ তা এখন গোটা দেশকে আ’চ্ছন্ন করে ফেলছে। অস্ট্রেলিয়ায় কেয়ামত স’দৃশ দাবানল পৃথিবীবাসীকে হ’তবাক করে দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে গত বিশ বছরে বড় বড় ঝড়, জলোচ্ছ্বাস, বন্যা তাদের সাজানো জীবনযাত্রাকে বার বার তছনছ করেছে।

বর্তমানে চলছে চীনসহ বিশ্বের বহু রাষ্ট্রে করোনা আ’তঙ্ক। একটি শহরেই দুই কোটি মানুষ পৃথিবী থেকে বি’চ্ছিন্ন। অসহায়ের মতো বহু মানুষ মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। তাদের লাশ নেয়ার লোকেরা ভী’ত স’ন্ত্রস্ত।

চীনের সাথে যোগাযোগ ব’ন্ধ হয়ে যাচ্ছে বহু দেশের। দক্ষিণ কোরিয়ায় এ আ’তঙ্ক ছড়াচ্ছে। চীনের ৩৪টি প্রদেশই আ’তঙ্কের আওতায় এসে গেছে। ঈমানদাররা এসবে যত না ভয় পায়, তারচেয়ে বেশি ঈমানী উপলব্ধি তাদের বাড়ে। গুনাহ খাতা থেকে তারা তওবা করে।

জীবন মৃ’ত্যু আল্লাহর হাতে এ বিশ্বাস থাকায় তাদের ততটা অসহায় বোধ হয় না। সমস্যা হয় অবিশ্বাসী নাস্তিকদের। তাদের জন্য এসব নিদর্শন আল্লাহর অপরিসীম শক্তি ও ক্ষমতার নিদর্শন। তাদের প্রতি এসব আল্লাহর স’তর্কবা’ণী। উন্মুক্ত দাওয়াত। যেন তারা আল্লাহকে চিনে। তার প্রতি ঈমান আনে।