ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার যখন চোর

বহুদিন ধরে যশোরে বিভিন্ন মোবাইল ফোন কোম্পানির টাওয়ারের ব্যাটারিসহ বিভিন্ন মালামাল চুরি হচ্ছিল। কিন্তু চোরচক্র’টিতে শনাক্ত বা আ’টক করা যায়নি। তবে যশোরের ডিবি পুলিশ এক অ’ভিযানে এই চ’\ক্রের মূলহোতাসহ ৭ জনকে আ’টক করেছে।

পুলিশ জানতে পেরেছে, চক্রটি আন্তঃজেলা চোরচ’ক্রের সদস্য এবং তিনজন ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার। তারা বিভিন্ন সময় মোবাইল ফোন কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

এসময় তাদের কাছ থেকে চোরাই ১০০টি ব্যাটারি, ৪৯টি সার্কিট, ২২টি কুলিংফ্যান, চুরি কাজে ব্যবহৃত ১টি ডাবল কেবিন পিকআপ, ৩টি ভাঙ্গা তালা, তালা ভাঙ্গার বিভিন্ন সরঞ্জাম উ’দ্ধার করা হয়েছে। যশোর খুলনা ও সাতক্ষীরায় অ’ভিযান চালিয়ে তাদেরকে আ’টক করা হয়।

আ’টককৃদের ৩ জন ডিপ্লোমাধারী ইঞ্জিনিয়ার এবং তারা বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানির টাওয়ারে কাজ করতেন। এরা হলেন, মিঠু, মিরাজ ও চঞ্চল। টাওয়ার থেকে সহজে ব্যাটারি চুরি করে আ’গুনে পুড়িয়ে তার থেকে শিসা বের করে ফের মোবাইল কোম্পানি এবং ব্যাটারি তৈরির কারখানায় বিক্রি করার সিস্টেম জানেন। চুক্তি শেষে মোবাইল কোম্পানিতে চাকরি না থাকায় তারা চুরির কাজে নেমে পড়েন । এ চক্রের ৭জনকে আ’টক করা হলেও যশোর, খুলনা এবং সাতক্ষীরা এলাকায় আরো বেশ কয়েকটি চক্র রয়েছে।এদিকে চুরির ঘটনা স্বী’কার করেছে চঞ্চল, মিঠু, মিরাজ ও রিমু।

তার স্বী’কারোক্তিমূলক জবানবন্দি ১৬৪ ধারায় রেকর্ড করেছেন সিনিয়র জু’ডিসিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট শম্পা বসু ৷