খাবার নেই, করোনাভাইরাসের আতঙ্কে বাঙালি গবেষক

বর্তমানে সারা বিশ্বের আ’তঙ্কের নাম করোনাভাইরাস। চীনে ইতোমধ্যে তা মহামারির আকার নিয়েছে। এখন পর্যন্ত মোট ১২০ জনের মৃ’ত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। মোট ৪,৫০০ জন আ’ক্রান্ত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। চীনা ভাইরাসের আ’তঙ্ক গ্রাস করেছে ভারতকেও। শনিবার প্রধানমন্ত্রীর দফতরে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করা হয়। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

এরই মধ্যে সামনে এসেছে ভারতের কলকাতার দুই বাঙালি গবেষকের চীনে আটকে থাকার খবর। সাম্য রায় ও আরিফ ইসলাম নামে ওই দুই গবেষক চীনের দুটি ভিন্ন শহরে আটকে রয়েছেন। না জুটছে ঠিকঠাক খাবার, না পাওয়া যাচ্ছে পর্যাপ্ত পানি। সারাক্ষণ মুখে মাস্ক লাগিয়েও আতঙ্ক থেকে মিলছে না রেহাই।

ফোনে সংবাদমাধ্যমকে গবেষক সাম্য রায় জানিয়েছেন, হুবেই প্রদেশের অবস্থা অত্যন্ত ভয়ংকর। বন্ধ বাজার, ট্রেন চলাচল, বিমান পরিষেবা, ব্যাহত হচ্ছে জরুরি পরিষেবা। এভাবে আ’টকে থাকতে হলে কীভাবে খাবারটুকু পাওয়া যাবে, আপাতত চিন্তা সেটাই। তার কথায়, প্রায় তিনশো ভারতীয় ছাত্র ওয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে গিয়েছে। তার মধ্যে তারা দু’জন বাঙালি। একজনের বাড়ি কলকাতায়। গোটা শহর বন্ধ। ওয়ান বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের দু’জন ছাত্র করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর আতঙ্ক আরও ছড়িয়ে পড়েছে।’

অপরদিকে গবেষণার কাজে চীনে গিয়ে আ’টকে পড়েছেন আরেক বাঙালি গবেষক কাজি আরিফ ইসলাম। হুবেই প্রদেশের ইউহান শহরেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। গোটা শহর তালাবন্দি। সেখানেই আটকে আছে আরিফ। ঘুরতে বেড়িয়ে আর শহরে ঢুকতে পারছেন না সিউড়ির এই বাসিন্দা।