বছরের শুরুতেই বিএসএফের গু’লিতে ২৩ দিনে ১৫ বাংলাদেশি নি’হত

চলতি মাসে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর গু’লিতে প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১৫ জন বাংলাদেশি। দুই দেশের সী’মান্তরক্ষা বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ে বৈঠকে বার বার প্রতিশ্রুতির পরও থামছে না বিএসএফের হাতে বাংলাদেশি হ’ত্যাকা’ণ্ড।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৮ সালে বছরজুড়ে সীমান্তে বিএসএফের গু’লিতে নি’হত হয়েছিলেন ১৪ জন। সেখানে ২০২০ এর প্রথম মাসেই ২০১৮ এর সারা বছরের সীমান্ত হ’ত্যার সংখ্যার চেয়ে বেশি সংখ্যক বাংলাদেশিকে হ’ত্যা করেছে বিএসএফ। ২০১৯ সালে ভারতের সীমান্ত রক্ষা বাহিনী- বিএসএফ’র হাতে প্রা’ণ হা’রিয়েছেন ৩৮ জন বাংলাদেশি। এক বছরের ব্যবধানে প্রা’ণহানির সংখ্যা বেড়ে প্রায় তিনগুণ দাঁড়ায়।

এদিকে, বিজিবির পক্ষ থেকে একের পর এক প্রতিবাদ ও পতাকা বৈঠকের পরও হ’ত্যা বন্ধ না হওয়ায় ক্ষো’ভ ও আ’তঙ্ক বাড়ছে সীমান্ত এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে। তারপরও বন্ধ হয়নি সীমান্ত হ’ত্যা। এরমধ্যে বৃহস্পতিবার নওগাঁ সীমান্তে বিএসএফের গু’লিতে তিন বাংলাদেশি নি’হত হয়েছেন। এর আগে, বুধবার লালমনিরহাট সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে প্রা’ণ গেছে দুই বাংলাদেশির।

উল্লেখ্য গত এক বছরে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে দেশটির সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর হাতে বাংলাদেশীদের প্রাণহানির সংখ্যা তিন গুন বেড়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশের আইন ও সালিশ কেন্দ্র। বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় কয়েকটি সংবাদপত্রের তথ্যের ভিত্তিতে ঐ প্রতিবেদন তৈরি করেছে সংস্থাটি।