যে কারণে রানা-মুগ্ধদের উপর ভরসা রাখতে পারছেন না নান্নু

বঙ্গবন্ধু বিপিএল ২০১৯ চলছে টানটান উত্তেজনার সাথে। বিপিএলে নিজের অভিষেক ম্যাচেই নজর কেড়েছেন তরুণ গতি তারকা মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ। এবারের বিপিএলে ধারাবাহিকভাবে ঘণ্টায় ১৩৫ থেকে ১৩৮ কিলোমিটার গতিতে বল করেছেন মুগ্ধ।

শুধু মুগ্ধই নয়, চট্টগ্রামের মেহেদী হাসান রানা, ঢাকা প্লাটুনের হাসান মাহমুদ, খুলনা টাইগার্সের মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ আর শহীদুল ইসলাম ভালো করছেন। দেশি-বিদেশি তারকাদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিজেদের আলাদা করে চেনাচ্ছেন তারা।

এদিকে বিপিএল শেষ হলেই সামনে পাকিস্তান সফর। তাই তো টি২০র দল গোছানোর কাজ এগিয়ে রাখতে হচ্ছে নির্বাচকদের। বিপিএলের সময়টুকুতেই খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স দেখে নিতে চান নির্বাচকরা।

কিন্তু এই এক আসর দেখেই তরুন ক্রিকেটারদের উপর ভরসা রাখতে পারছেন না প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তিনি বলেন, ‘এই ছেলেগুলো অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলে এসেছে। এইচপির ছেলেরা ভালো বোলিং করছে। চট্টগ্রামের ভেন্যুতে বল করা কঠিন। ময়েশ্চারে বল ভিজে যাচ্ছে। এর মধ্যেও কয়েকজন ভালো বোলিং করছে। তবে একজন খেলোয়াড়ের মান তখনই বুঝতে পারবেন যখন তিন থেকে চার বছর একটা ধারাবাহিকতা থাকবে। এক-দুটি ম্যাচ দিয়ে এবং শর্টার ভার্সন দিয়ে বোলারকে বিবেচনা করা যায় না।’

নান্নু আরও বলেন, ‘যে কোনো ইয়াংস্টারের কাজ হচ্ছে চিন্তা-ভাবনা করা, যেন পরবর্তী ১৫ বছর ভালো মানের ক্রিকেট খেলতে পারি। একটা-দুটো ম্যাচ দেখে কাউকে বিবেচনা করা যায় না। ১৫ বছরের একটা গোল সেট করতে হবে।’