শুধু মুসলমানদেরকেই দায়ী করেছেন মোদি

সম্প্রতি নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে গত কয়েক দিন থেকেই যেন ফুঁসে উঠেছে দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে, পুলিশ অর্ধশতাধিক বিক্ষোভকারীকে আটক করেছে। শুধু তাই নয়- আসাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়, মণিপুরের একাধিক জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।

তবে এই প্রতিবাদ বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে পড়া ও বিক্ষোভের জন্য পরোক্ষভাবে শুধু মুসলমানদেরকেই দায়ী করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত রবিবারে ঝাড়খন্ডে এক নির্বাচনী সভায় পরোক্ষভাবে শুধু মুসলমানদেরকে দোষ দিয়ে মোদি বলেন- ‘ এই সব আগুন কারা লাগাচ্ছে, সেটা তাদের পোশাক দেখলেই চেনা যায়’।

তিনি বলেন- ‘আমার ভাই ও বোনেরা, এই যে দেশে আগুন লাগানো হচ্ছে, টেলিভিশনে যে সব ছবি আসছে সেগুলো কি আপনারা দেখেছেন?’

তিনি আরও বলেন, ‘আগুন কারা লাগাচ্ছে, সেটা কিন্তু তাদের পোশাক দেখলেই চিনতে পারা যায়!

এছাড়াও ওসময় তিনি কংগ্রেসের উপর অভিযোগ এনে বলেন- ‘এসব বিক্ষোভের পিছনে কংগ্রেসের মতো বিরোধী দলগুলি উসকানি দিচ্ছে’।

এ ব্যাপারে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম থেকে জানা যায়, গত কয়েকদিনে ভারতের বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে এমন অনেক ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে যাতে দেখা যাচ্ছে লুঙ্গি এবং টুপি পরিহিত লোকজন লাঠিসোঁটা বা পাথর নিয়ে বিভিন্ন রেল স্টেশনে ভাঙচুর চালাচ্ছে।