রুম্পার ঘটনায় নতুন মোড়

স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা আ/ত্ম/হ/ত্যা করেননি বরং তাকে হ/ত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ডিএমপি রমনা জোনের সিনিয়র এসিস্ট্যান্ট পুলিশ কমিশনার শেখ শামীম জানিয়েছেন, ‘অপমৃ./ত্যুর মামলা না করে রমনা থানার এসআই খায়ের বাদী হয়ে এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরাও ধারণা করছি, তাকে হ/ত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় কে বা কারা জড়িত, তা খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।’

শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) তিনি বলেন, ‘রুম্পার বাবা রোকনউদ্দিন একজন পুলিশ ইন্সপেক্টর। সিদ্ধেশ্বরী রোডে আয়েশা শপিং কমপ্লেক্সের পাশে রুম্পার লা/শ পাওয়া যায় বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) রাতে।’

‘তখন লাশের পরিচয় জানা যায়নি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয়েছিল এটা আত্মহ/ত্যা। পরে পুলিশ মরদেহের পরিচয় নিশ্চিত হবার পর তদন্ত করে জানিয়েছে, রুম্পা আত্মহত্//যা করেনি, সম্ভবত কেউ তাকে আয়েশা শপিং কমপ্লেক্সের ছাদ থেকে ঠেলে নিচে ফেলে দিয়েছে।