সব বাধা পেরিয়ে পারবে কি বাংলাদেশ?

এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল আশা জাগিয়ে আবার হারিয়ে দিয়েছে। প্রতিটি ম্যাচেই দেখা গেছে জিততে গিয়ে আবার হেরে গেছেন এই টাইগার বাহিনী। এই বিশ্বকাপে প্রতি ক্রিকেট প্রেমী মানুষের আশাটা ছিল ব্যাপক। সবাই ভাবতেছিল সেমিফাইনাল খেলবে। কিন্তু সেই আশা আর পূরণ হলো না বাংলাদেশের। শেষ পর্যন্ত অষ্টম স্থানে অবস্থান করে দেশে ফিরতে হলো টাইগারদের।

এইবার সেই ব্যর্থতার গ্লানি মুছতে শ্রীলঙ্কায় তিন ম্যাচের সিরিজ খেলতে পাঠাতে হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে। এদিকে নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা নেই ইনজুরির কারণে।

এই অবস্থায় চোট আর ছুটি মিলিয়ে সেরা স্কোয়াড নিয়ে শ্রীলঙ্কায় যেতে না পারা বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দেবেন তামিম ইকবাল। যারও বিশ্বকাপটা কেটেছে বড় অস্বস্তিতে। কলম্বোয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সাধারণ এক সিরিজ তাই বাংলাদেশের কাছে হাজির ভিন্ন মাত্রা নিয়ে।

বিশ্বকাপের পরপর হওয়ায় শ্রীলঙ্কায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে উত্তাপ অতটা চড়া হয়নি। কিন্তু অস্বস্তিতে থাকা একটা দল এমন একটা সিরিজের ফল নিজেদের দিকে আনতে পারলে ক্ষতে একটা প্রলেপের কাজও করতে পারে। বাংলাদেশের দিক থেকে তাই তিন ম্যাচের এই ওয়ানডে সিরিজ অনেকটা ক্ষতে প্রলেপ দেওয়ারই মিশন।

আনকোরা দল নিয়ে গিয়ে বিশ্বকাপে ৬ষ্ঠ হওয়ার পরও লঙ্কানরাও সুখে নেই। লাসিথ মালিঙ্গা অবসরে যাচ্ছেন, কোচ চণ্ডিকা হাথুরুসিংহের থাকা না থাকা নিয়েও আলাপ তুমুল।

তামিমের সামনে চ্যালেঞ্জঃ বিশ্বকাপে নিজে প্রত্যাশা পূরণের ধারেকাছেও যেতে পারেননি তামিম ইকবাল। উলটো পুরো টুর্নামেন্টে তার ব্যাটিং অ্যাপ্রোচ নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। বিশ্বকাপ শেষে বাকিরা যখন বিশ্রাম কিংবা ঘুরে বেড়াতে ব্যস্ত তামিম দেশে ফিরেই ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নেমেছিলেন অনুশীলনে। শ্রীলঙ্কা সিরিজে কিছু একটা করে দেখাতেই হবে এমন পণ নিয়েই ধার বাড়িয়েছেন ব্যাটের। ব্যাটসম্যান তামিমের জন্য এমনিতেই এই সিরিজ হতে পারত চ্যালেঞ্জের। তার সঙ্গে নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার চোট, সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ছুটির কারণে তার কাঁধে এসে পড়েছে নেতৃত্বের ভার। দল ভালো করা আর নিজের ব্যাটে রান, এই সিরিজে যে দুটোই চাই তামিমের।

মাশরাফির না থাকাঃ আভাস ছিল বিশ্বকাপেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলবেন মাশরাফি। কিন্তু তা হয়নি, চোট নিয়েও খেলা চালিয়ে গেছেন, ছন্দ হারিয়ে পড়েছেন সমালোচনায়। শ্রীলঙ্কা সফরেও তাকে অধিনায়ক করে দল দেওয়া হয়েছিল। যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়েও ছিলেন তিনি। কিন্তু পুরো বিশ্বকাপে বয়ে বেড়ানো হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট ফের বিগড়ে গেলে থামতে হয় তাকে। শ্রীলঙ্কায় থাকছেন না অধিনায়ক। তিনি না থাকলেও অবশ্য তার অবসর নিয়ে আলোচনা থামেনি। তার জায়গায় ফরহাদ রেজা, তাসকিন আহমেদদের ডাকা হয়েছে, প্রস্তুতি ম্যাচে যারা প্রত্যাশা পূরণের কাছেও যেতে পারেননি। বোলার মাশরাফির থাকা না থাকা কতটা ব্যবধান তৈরি করছে, এই সিরিজে দেখার আছে তা। তবে তারচেয়ে প্রকট বোধহয় অধিনায়ক মাশরাফির না থাকা। অনেকদিন পর বাংলাদেশ কোন ওয়ানডে সিরিজ খেলতে নামছে, যেখানে নেই অধিনায়ক মাশরাফি।

খোলনলচে বদলানো পেস আক্রমণঃ অধিনায়ক মাশরাফি আর মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন চোটের কারণে নেই। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থেকেও খেলার সুযোগ না পাওয়া আবু জায়েদ রাহি স্পষ্ট কারণ ছাড়াই উপেক্ষিত। তাদের জায়গায় এই সিরিজে পেস আক্রমণে এসেছেন তাসকিন আহমেদ, ফরহাদ রেজা, শফিউল ইসলামরা। মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে বিশ্বকাপে মাত্র দুই ম্যাচ খেলা রুবেল হোসেন তাই খেলছেনই, বাকি তিনজন থেকে তৃতীয় পেসার কে হচ্ছেন তাও দেখার বিষয়। বিশ্বকাপের পর অনেকটা ভিন্ন রকম পেস আক্রমণ নিয়েই নামছে বাংলাদেশ।

তিন নম্বরে মিঠুনের পরীক্ষাঃ বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসান যা খেলেছেন, কেবল বাংলাদেশ নয় বিশ্বকাপের সেরা একাদশেই তিন নম্বরে জায়গা তার পাক্কা। এমন একজন পারফর্মারকে শ্রীলঙ্কা সফরে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। সাকিব আছেন লম্বা ছুটিতে। কিন্তু তিনে তো কাউকে খেলতে হবে। লিটন দাস হতে পারতেন সেরা বিকল্প। কিন্তু বিয়ের জন্য ছুটি নিয়েছেন তিনিও। বিশ্বকাপে একাদশে জায়গা হারানো মোহাম্মদ মিঠুনের উপর তাই আস্থা রাখছে বাংলাদেশ। শুক্রবার প্রথম ওয়ানডেতে সাকিবের জায়গায় তিনে নামবেন তিনিই। অবশ্য প্রস্তুতি ম্যাচে আস্থার প্রতিদান দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন তিনি। ১০০ বলে করেছেন ৯১ রান। তবে মূল ম্যাচে মিঠুন কতটা মুন্সিয়ানা দেখাতে পারেন তার উপর নির্ভর করছে বাংলাদেশের টপ অর্ডারের পারফরম্যান্স।

মালিঙ্গার অবসরঃ এই সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলবেন লঙ্কান ইতিহাসের অন্যতম সেরা পেসার লাথিস মালিঙ্গা। মালিঙ্গার বিদায়ী ম্যাচ বলে কলম্বোয় শুক্রবার সব আলো তাকে ঘিরেই। এরমধ্যেও লাগানো হয়েছে বিশাল সব প্লাকার্ড। প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামের সব টিকেট এরমধ্যেই বিক্রি হয়ে গেছে। সিরিজের শুরুর ম্যাচটা তাই মালিঙ্গার ম্যাচ বলবে অত্যুক্তি হবে না।

হাথুরুসিংহে ইস্যুঃ এই সিরিজে অদ্ভুত এক দোলাচলে থাকবেন ‘এখন পর্যন্ত’ শ্রীলঙ্কার কোচ চণ্ডিকা হাথুরুসিংহে। ‘এখন পর্যন্ত’ কারণ খবর বড় গোলমেলে। এই সিরিজের পরই নাকি হাথুরুসিংহের সঙ্গে লেনাদেনা মিটে যাচ্ছে লঙ্কান বোর্ডের। কিন্তু এরপর ঘটে যেতে পারে আরও নাটকীয় কিছু। ২০১৭ সালে এক সিরিজের মাঝে হুট করে বাংলাদেশের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়া এই কোচকে আবার বিসিবি ফেরাতে চাইছে, এমন খবর রটে গেছে এরমধ্যে। খেলোয়াড়দের সঙ্গে তেতো সম্পর্কের জেরে বিদায় নেওয়া হাথুরুসিংহে ফের চাইলে কোচ হয়ে আসতেও পারেন, এই সম্ভাবনা খোদ বিসিবি প্রধান উড়িয়ে দেননি। কেউ না চাইলেও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হাথুরুসিংহের দিকে নজর থাকবে সবার।

মাঠ এবং মাঠের বাইরের নানান ইস্যু বাদ দিলে ক্রিকেটীয় বিচারে দুই দল আছেন সমান পাল্লায়। মুখোমুখি সর্বশেষ পূর্ণ হওয়া ছয় ম্যাচের মধ্যে দুই দলই জিতেছে তিনটি করে ম্যাচ। বিশ্বকাপে হতে পারত জম্পেশ লড়াই। কিন্তু ব্রিস্টলের সেই ম্যাচ কেড়ে নিয়েছে বৃষ্টি। শুক্রবারও বৃষ্টির আভাস আছে কলম্বোতেও। কিন্তু বৃষ্টি বাগড়া না দিলে মাঠের ক্রিকেটে জমজমাট লড়াই আশা করাই যায়।