এরপরেও যদি মন খারাপ না হয় তাহলে সেটা হবে লজ্জাজনক : মাশরাফী

এবার বিশ্বকাপে প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফর্ম না করার পরেও যদি মন খারাপ না হয় তাহলে সেটা হবে লজ্জাজনক। এমনটাই মনে করেন জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফী বিন মুর্তজা।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিসিবিতে সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বকাপ নিয়ে প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন মাশরাফী।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্লেয়ার হিসেবে তো রিসপনসিবিলিটি নিতেই হবে। আর যখন অধিনায়কত্ব নিয়েছিলাম, তখনই আমার এই একই অনুভুতিগুলো কাজ করেছে। কারণ, আমি আঠারো বছর ধরে ক্রিকেট খেলছি, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট আমি খুব ভালো করেই জানি। মানুষ খুব তাড়াতাড়ি প্রশ্ন করা শুরু করবে। আর চার-পাঁচ বছর সারভাইভ করার পরে এত কঠিন মনে হচ্ছে না। তবে একজন খেলোয়াড় হিসেবে সবসময় একটা ভালো লাগা, খারাপ লাগা থাকেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্বকাপের প্রত্যাশা, আমার নিজের পারফরম্যান্স বা দল নিয়ে প্রত্যাশা ছিল সেটা যখন পূরণ হবে না তখন খুব স্বাভাবিকভাবেই আমি নিরাশ হবোই। অনেকেই আমাকে বুঝানোর চেষ্টা করছে বা করবে যে, মন খারাপ করো না। কিন্তু আমি যদি মন খারাপ না করি তাহলে সেটা হবে লজ্জাজনক। কারণ এত বড় একটা রিসপনসিবিলিটি নিয়ে আমার মন খারাপ হবে না… আমার প্রত্যাশা পূরণ না হলে অবশ্যই আমার মন খারাপ হবে। কিন্তু ওইখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর মানসিকতাও আমার আছে। তো যেটা আমি আগে পরেও করেছি। তো চাপ অনুভব করার কিছু নেই।’

‘আর আলটিমেটলি শেষ দিকে এসেও এত প্রেসার নেয়ার কিছু নেই। তো পজিটিভ খোঁজার অনেক জায়গা আমার আছে। অনেক সময় হয় না যে, একটা টুর্নামেন্টে ডু অর ডাই, নাথিং টু লুজ। আমার পরিস্থিতিটাও অনেকটা ওই রকম- নাথিং টু লুজ। সো প্রেসার সবসময় যেটা থাকে সামনেও সেটাই থাকবে যতদিন ক্রিকেট খেলবো। তবে (বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সে) আমি ব্যক্তিগতভাবে অত্যন্ত আফসেট। এবং আমার কাছে মনে হয় সেটা খুবই স্বাভাবিক। তবে ঘুরে দাঁড়ানোর সাহসিকতা বা মন মানসিকতাও আমার আছে’-যোগ করেন মাশরাফী।